খরগোশের মাংস খাওয়া কি হারাম? (ভিডিও)

385

খরগোশ খাওয়া হালাল নাকি হারাম তা নিয়ে আলেমদের মধ্যে মতানৈক্য রয়েছে। একদল আলেমের মতে, খরগোশের নখ আছে। এসব নখওয়ালা খরগোশ হিংস্র হয়। হিংস্রতার কারণে খরগোশের মাংস খাওয়া হালাল নয়।

কারণ হিংস্র ও মাংসভোজি প্রাণি খাওয়া নিষিদ্ধ করেছে ইসলাম। মানুষ যা খায় তার প্রভাব পড়ে তার আচরণে। তার আচরণে সেটা প্রকাশও পায়। হিংস্র পশুর মাংস খেলে মানুষও হিংস্র হয়ে উঠতে পারে। এ কারণে গরু, ছাগল, মুরগী, ভেড়া, মহিষ, দুম্বার মতো শান্ত স্বভাবের প্রাণির মাংস খাওয়া হালাল করেছে ইসলাম। খুব সহজেই পোষমানা শান্ত প্রাণির মাংস খেতেই কেবল অনুমতি দেয় ইসলাম। যেসব খরগোশের নখ রয়েছে সেগুলো খাওয়া মাকরুহ বলেও মনে করেন একদল আলেম।

খরগোশের মাংস খাওয়া হালাল বলে রায় দিয়েছেন যে আলেমরা তাদের যুক্তি হলো- খরগোশের অনেক ধরনের জাত রয়েছে। যেসব খরগোশ পোষ মানে এবং গৃহে পালন করা যায় সেগুলো একেবারেই হিংস্র নয়। সেগুলো নিরীহ ও শান্ত প্রকৃতির। এদের নখ বলতে কিছুই থাকে না। এ ধরনের খরগোশের মাংস খাওয়া হালাল। এছাড়া ইসলামী শরীয়ত অনুযায়ী, খরগোশ পালন করা যেমন জায়েজ তেমনি খরগোশের মাংস খাওয়াও জায়েজ।