পরীমনির খোলা পেটের ছবি নিয়ে তোলপাড় (ভিডিও)

582

দেশীয় চলিচ্চত্রাঙ্গণের সাহসী নায়িকা হিসেবে নিজেকে প্রমাণ করেছেন পরীমনি। কোনোরকম রাখঢাক না করে অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার খবর নিজেই জানিয়েছেন পরী। হলিউড-বলিউডের নায়িকারা বেবি বাম্পের ছবি প্রকাশ করেন হরহামেশাই। তবে ঢালিউড নায়িকাদের মধ্যে এমন সাহস প্রদর্শন আগে দেখা যায়নি।

স্বামী চিত্রনায়ক শরীফুল রাজের সঙ্গে পরীমনি।

সেই প্রথা ভেঙেছেন পরীমনি। অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় খোলা পেটের ছবি প্রকাশ করে নেট দুনিয়ায় রীতিমতো তোলপাড় তুলেছেন। স্বামী চিত্রনায়ক শরীফুল রাজের সঙ্গে সাগরপাড়ে তোলা সেই ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশ করতেই ভাইরাল হয়ে গেছে। লাইক, কমেন্ট আর শেয়ারের পাহাড় জমেছে।

ঈদের ছুটিতে কক্সবাজারে গিয়ে ছবিটি তোলেন পরীমনি। পরে বেবি বাম্পের ছবিটি পোস্ট করেন নিজের ফেসবুক পেজে। লক্ষ লক্ষ প্রতিক্রিয়া পায় ছবিটি। পাশাপাশি বহু ফেসবুক পেজ ও গ্রুপে শেয়ায় হয় তা। সবমিলিয়ে ব্যাপক ভাইরাল হয় ছবিটি।

স্বামী চিত্রনায়ক শরীফুল রাজের সঙ্গে পরীমনি।

প্রকাশিত ছবিটিতে দেখা গেছে, সৈকতে দাঁড়িয়ে আছেন পরীমনি। অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় খোলা পেটের নিচের অংশ আলতো করে ধরে রেখেছেন নিজের দুই হাত দিয়ে। মুখে ফুটে উঠেছে পরিতৃপ্তির স্মিত হাসি। দুটি চোখই বন্ধ করে আছেন অনাবিল সুখের আবেশে। আর পেছন থেকে তাকে গভীর ভালোবাসায় জড়িয়ে ধরে আছেন স্বামী শরিফুল রাজ।

ছবির ক্যাপশনে পরীমনি জানান, গর্ভধারণের দ্বিতীয় ত্রৈমাসিক পর্যায়ে আছেন তিনি। স্বামী শরীফুল রাজকে ধন্যবাদও জানান পরীমনি। পরীমনি-শরীফুল রাজের ছবিটি তুলে দেন আরিফ আহমেদ। এজন্য তাকে ধন্যবাদ জানিয়ে পরীমনি লেখেন, চমৎকার এই ছবির জন্য আরিফ আহমেদকে ধন্যবাদ।

স্বামী চিত্রনায়ক শরীফুল রাজের সঙ্গে পরীমনি।

ছবিটি প্রকাশ করার পর নানা ধরনের মন্তব্য আসতে থাকে। সেগুলোর মধ্য থেকে শ্বাশ্বতী বিপ্লব নামের একজনের মন্তব্য নিজের টাইম লাইনে শেয়ার করেন পরীমনি নিজেই।

শ্বাশ্বতী বিপ্লব পরীমনির ছবিটি নিয়ে তার চমৎকার মন্তব্যে লিখেছেন, এখানে দেখার বিষয় পরিমনীর পেট না। দেখার বিষয় হলো, পরিমনীর সৎ সাহস এবং অকপটতা। আর আমি সেটারই তারিফ করি। ক্রমশঃ হিজাব আর বোরখায় ঢেকে যাওয়া এই মানচিত্রে পরিমনীর এই দুঃসাহসকে আমি ভালোবাসি।

স্বামী চিত্রনায়ক শরীফুল রাজের সঙ্গে পরীমনি।

কয়েক বছর আগে, মা হয়েছিলেন হালের আরেক নায়িকা অপু বিশ্বাস। তবে গোপনে। কেউ কিছু টের পায়নি। অপু বিশ্বাস গোপনে বিয়ে করেছিলেন। পাক্কা নয়টা বছর গোপনে শাকিব খানের ভোগে লেগেছেন। গর্ভধারণ করেছেন গোপনে এবং সন্তান জন্মও দিয়েছেন গোপনে।

তারপর সন্তান আর নিজের স্বীকৃতি পাওয়ার জন্য সন্তান কোলে মিডিয়াতে এসে কান্নাকাটি করেছেন। তাতে জাতির মান-সম্মানের কোনো ক্ষতি হয়নি। মা জাতি লজ্জা পায়নি।

স্বামী চিত্রনায়ক শরীফুল রাজের সঙ্গে পরীমনি।

এবার পরীমনি মা হচ্ছেন। তিনি বিয়ে করেছেন প্রকাশ্যে। বিয়ের সময় সন্তানসম্ভবা ছিলেন- সেটাও বলেছেন নির্দ্বিধায়। এবং বেবিবাম্প বা গর্ভাবস্থায় পেট দেখিয়ে রোমান্টিক ছবি দিয়েছেন প্রকাশ্যে। তাতে জাতি লজ্জায়-শরমে মুহ্যমান হয়ে পড়েছে। মা জাতির মান-সম্মান ধুলায় লুটাইতেছে!

হলিউডে, এমনকি বলিউডেও বহু সেলেব্রিটি নায়িকা বেবি বাম্পের ছবি প্রকাশ করেছেন এর আগে। আমরা মুগ্ধ হয়ে দেখেছি। সমস্যা হলো, আমার দেশে এর আগে কোনো সেলেব্রিটি এই সাহস দেখায়নি। পরীমনি দেখিয়েছেন। গর্ভধারণ করলেই পেট দেখিয়ে ছবি পোস্ট করতে হবে- এই নিয়ম যেমন কোথাও লেখা নাই, আবার লুকিয়ে, ঢেকে-ঢুকে রাখতে হবে- সেটাও কোথাও লেখা নাই।

স্বামী চিত্রনায়ক শরীফুল রাজের সঙ্গে পরীমনি।

একজন মা এবং একজোড়া দম্পতি তাদের সন্তানের আগমনকে উদযাপন করছেন তাদের মতো করে। তাতে এই মহাবিশ্বের কোনো ক্ষতি হয়নি। মাতৃত্ব সুন্দর। মাতৃত্বের কারণে হওয়া বেবি বাম্প সুন্দর। আপনার দেখতে ইচ্ছা না করলে চোখ বন্ধ করে রাখেন।

বিশেষ দ্রষ্টব্য: পরীমনিরে ভালা পাই বইলা এমনিতেই আমারে কেউ দেখতে পারে না। তারপরও সাহস করে আবার পরীমনির পক্ষে লিখে ফেললাম। লাভ ইউ পরীমনি।

স্বামী চিত্রনায়ক শরীফুল রাজের সঙ্গে পরীমনি।

এদিকে এক সাক্ষাৎকারে জীবনের নতুন অধ্যায় নিয়ে খোলামেলা কথা বলেছেন পরীমনি। তিনি বলেছেন, এটা আমার জীবনের সবচেয়ে সুন্দর অধ্যায়। একজন নারীর জন্য পৃথিবীতে প্রথম সন্তানকে স্বাগত জানানোর জন্য অপেক্ষা করা সেরা অনুভূতি। এই অনুভূতির কথা ভাষায় বর্ণনা করা যাবে বলে মনে হয় না।

আমি বাড়িতেই থাকছি। প্রয়োজন হলে চেক-আপের জন্য যাচ্ছি। আমি সত্যিই অনেক খুশি। আমি মনেপ্রাণে সম্পূর্ণ নতুন এই অভিজ্ঞতা দারুণ উপভোগ করছি। আমার স্বামী রাজ সবসময় আমার যত্ন নেওয়ার জন্য উদগ্রীব হয়ে থাকে। এটা আমার জীবনের সবচেয়ে সুন্দর অধ্যায়।

স্বামী চিত্রনায়ক শরীফুল রাজের সঙ্গে পরীমনি।

আমরা আমাদের অনাগত সন্তানের একটি নাম ভেবেছিলাম। কিন্তু চূড়ান্ত করিনি। আপাতত কোনো নামই চূড়ান্ত নয়। সন্তানের জন্ম হওয়ার পর চূড়ান্ত করবো। আমার স্বামী এবং আমি দুটি আলাদা নাম রাখতে পারি কিংবা দুজন একসঙ্গে একটি নাম বেছে নিতে পারি।

এবার ঈদে ছুটির দিনগুলো পরিবারের সাথে কাটিয়েছি কক্সবাজারের সুন্দর সমুদ্রতীরে। আমাদের হোটেল রুম ফুল দিয়ে সাজানো হয়েছিল যা আমার জন্য একটি চমৎকার সারপ্রাইজ ছিল। ঈদের সময় সমুদ্রপাড়ে থাকার বিষয়টি ভীষণ উপভোগ করেছি।

স্বামী চিত্রনায়ক শরীফুল রাজের সঙ্গে পরীমনি।

দর্শকের ভালোবাসা না পেলে ক্যারিয়ারে এতদূর আসতে পারতাম না আমি। এটা আমার সবচেয়ে বড় অর্জন। এই মুহূর্তে আমার একমাত্র অগ্রাধিকার মাতৃত্ব। সময় হলে পুরোপুরি প্রস্তু হয়ে আমি আবার পুরোদমে কাজে ফিরব।

আমি শুধু আমার এবং আমার পরিবারের জন্য আমার ভক্তদের কাছে দোয়া চাই। মানুষের প্রার্থনা খুব বেশি অর্থবহ একটি বিষয়। আমি আশা করি, আমি কোন অসুবিধা ছাড়াই এই যাত্রার শেষ পর্যন্ত পৌঁছাতে পারব এবং আমার সন্তান নিরাপদে এই পৃথিবীতে আসবে।