dark_mode
Sunday, 05 February 2023
Logo

৯৩ বছর বয়সে ৪র্থ বিয়ে করলেন চন্দ্রজয়ী অলড্রিন (ভিডিও)

৯৩ বছর বয়সে ৪র্থ বিয়ে করলেন চন্দ্রজয়ী অলড্রিন (ভিডিও)

১৯৬৯ সালে মানব ইতিহাসে প্রথমবারের মতো চাঁদের বুকে পা রেখে কিংবদন্তী হয়ে যান নীল আর্মস্ট্রং, বাজ অলড্রিন ও মাইকেল কলিন্স। অনন্য ইতিহাস সৃষ্টিকারী ওই তিন সৌভাগ্যবান নভোচারীর একজন ড. এডউইন ইউগিন বাজ অলড্রিন। ৩৯ বছর বয়সে চন্দ্রজয় করা অলড্রিনের বয়স এখন ৯৩ বছর। সম্প্রতি চতুর্থবারের মতো বিয়ে করেছেন মার্কিন বিমানবাহিনীর এই অবসরপ্রাপ্ত কর্নেল, পাইলট ও নভোচারী। বলাই বাহুল্য তার বিয়ের খবরে তোলপাড় উঠেছে বিশ্বজুড়ে।

 

৯৩ বছর বয়সে দীর্ঘ দিনের রোমানীয় বান্ধবী ড. অ্যানকা ফাউরকে বিয়ে করেছেন সাবেক এই মহাকাশচারী। রোমানিয়ার মেয়ে ড. অ্যানকা ফাউর পিটসবার্গ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেছেন।

 

গতকাল শনিবার, ২১ জানুয়ারি টুইটারে নববিবাহিত স্ত্রীর সঙ্গে নিজের ছবি পোস্ট করে সুখবর জানিয়েছেন অলড্রিন নিজেই।

 

অলড্রিন জানিয়েছেন, ক্যালিফোর্নিয়ার লস অ্যাঞ্জেলেসে ঘরোয়া আয়োজনের মধ্য দিয়ে দীর্ঘদিনের বান্ধবী অ্যানকা ফাউরের সঙ্গে তার বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়েছে। কিশোর বয়সে বাড়ি থেকে পালিয়ে যাওয়ার মতো অনুভূতি হচ্ছে বলেও জানান ৯৩ বছর বয়সী অলড্রিন।

 

অলড্রিন তার টুইটে লেখেন, আমার ৯৩তম জন্মদিনে আনন্দের সঙ্গে ঘোষণা দিচ্ছি যে, আমার দীর্ঘদিনের প্রেম আনকা ফর আর আমি গাঁটছড়া বেঁধেছি। লস অ্যাঞ্জেলেসে ঘরোয়া পারিবারিক আয়োজনে বিয়ে সম্পন্ন হয়েছে আমাদের। কিশোর বয়সে বাড়ি থেকে পালিয়ে যাওয়ার মতো অনুভূতি হচ্ছে।

 

উল্লেখ্য, অলড্রিন প্রথম বিয়ে করেছিলেন ১৯৫৪ সালে। তার প্রথম স্ত্রীর নাম জোয়ান আর্চার। তারা ২০ বছর সংসার করেন। কিন্তু টেকেনি সেই বিয়ে। ২০ বছরের দাম্পত্য জীবনের ইতি টানেন তারা। এরপর অলড্রিন বিয়ে করেন ১৯৭৫ সালে। তিন বছরের মাথায় তার দ্বিতীয় বিয়েও ভেঙে যায়। ১৯৮৮ সালে তৃতীয়বারের মতো বিয়ের পথে হেঁটে রীতিমতো হ্যাটট্রিক করে ফেলেন অলড্রিন। তার তৃতীয় স্ত্রীর নাম লয়েস ড্রিগস। কিন্তু ২০১২ সালে আবার বিচ্ছেদের পথে হাঁটেন অলড্রিন।  

 

১৯৬৯ সালের ২০ জুলাই নীল আর্মস্ট্রংয়ের সঙ্গে চাঁদে পাড়ি জমান মহাকাশচারী অলড্রিন। মিশন কমান্ডার ছিলেন নীল আর্মস্ট্রং। আর অলড্রিন ছিলেন মহাকাশযান অ্যাপোলো ১১ এর লুনার মডিউল পাইলট। সেদিন পৃথিবীর প্রথম মানুষ হিসেবে চাঁদে পা রাখেন নীল আর্মস্ট্র। এরপরই চাঁদের মাটিতে পা পড়ে অলড্রিনের। সেই হিসেবে চাঁদে পা রাখা দ্বিতীয় ব্যক্তি তিনি। মজার বিষয় হলো, চাঁদে মূত্রত্যাগকারী প্রথম ব্যক্তিও নাকি এই অলড্রিন। এক সাক্ষাৎকারে এ কথা জানিয়েছিলেন অলড্রিন নিজেই।

 

 

 

 

 

 

 

comment / reply_from

related_post

newsletter

newsletter_description