dark_mode
Monday, 05 December 2022
Logo

জামাতে ইমামের পেছনে নারীর সালাত আদায়ের বিধান

জামাতে ইমামের পেছনে নারীর সালাত আদায়ের বিধান

জামাতে নামাজ পড়ার সওয়াব বহুগুণ বেশি। কিন্তু নারীদের সবসময় পর্দা মেনে চলতে হয়, পাশাপাশি রয়েছে নিরাপত্তার বিষয়। নারীদের ঘরে নামাজ আদায় করতেই উৎসাহিত করা হয়েছে। তার মানে এই নয় যে, নারীরা মসজিদে গিয়ে নামাজ পড়তে পারবেন না। হাদিসে সুস্পষ্ট দিক-নির্দেশনাও আছে এ বিষয়ে।

পুরুষদের জামাতের সঙ্গে নারীরা নামাজ আদায় করতে চাইলে পুরুষদের কাছ থেকে দূরত্ব বজায় রেখে পেছনের সারিতে দাঁড়াতে হবে। পুরুষদের কাতারের মতোই কাতার করে দাঁড়াতে হবে নারীদের।

যদি কোনো পুরুষ নারীর ইমাম হয় সেক্ষেত্রে নারীকে পুরুষের পেছনে দাঁড়াতে হবে। আর যদি পুরুষদের জামাতের সঙ্গে নামাজ আদায় করে তাহলে পুরুষদের কাতারের পেছনে দাঁড়াতে হবে নারীদের। আবু হুরায়রা (রাঃ) থেকে বর্ণিত- রাসূল (সাঃ) বলেন, নারীদের সর্বোত্তম কাতার হলো শেষ কাতার ও নিকৃষ্টতম কাতার হলো প্রথম কাতার।

ঘরে কিংবা অন্য কোথাও নারীরা একত্র হয়ে কোনো নারীকে ইমাম বানিয়ে নামাজের জামাত করা মাকরূহে তাহরিমি। অবশ্য জামাতে আদায়কৃত সেই নামাজ শুদ্ধ হয়ে যাবে। কিন্তু ওই জামাতে নামাজ আদায়কারী প্রত্যেকেরই গুনাহ হবে।

তারপরও যদি নারীরা আলাদা জামাত করেন তাহলে যে নারী ইমাম হবেন তিনি কাতারে সবার সামনে দাঁড়াতে পারবেন না। প্রথম কাতারের মাঝখানে দাঁড়াতে হবে তাকে। (তাবঈনুল হাকায়েক: ১/১৩৫, ফাতাওয়া দারুল উলুম: ৩/৪৩)

 

 

comment / reply_from

newsletter

newsletter_description