dark_mode
Monday, 05 December 2022
Logo

এক অজুতে একাধিক নামাজ পড়া যায় কি?

এক অজুতে একাধিক নামাজ পড়া যায় কি?

অজু থাকার পরও প্রতিবারই নামাজ আদায়ের পূর্বে অজু করে নিতেন রাসূল (সা.)। অন্যদিকে অনেক সাহাবাকে অজু ভেঙে না যাওয়া পর্যন্ত এক অজুতেই একাধিকবার নামাজ আদায় করতে দেখা গেছে। এখানে উল্লেখ্য যে, মক্কা বিজয়ের দিন রাসূল (সা.) এক অজুতেই পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ আদায় করেছিলেন। কাজেই বলা যায়, অজু ভেঙে না যাওয়া পর্যন্ত এক অজুতে একাধিকবার নামাজ পড়া জায়েজ। কিন্তু প্রতিবার নামাজের পূর্বে অজু করে নেওয়া উত্তম।

এ সংক্রান্ত বর্ণিত কয়েকটি হাদিসের মধ্যে আমর ইবন আমির আনসারি (রহ.) বলেন, আমি আনাস ইবন মালিক (রা.) কে বলতে শুনেছি, রাসূল (সা.) প্রত্যেক নামাজের ওয়াক্তে নতুন করে অজু করতেন। আমি আনাস (রা.) কে প্রশ্ন করলাম, আপনারা কী করেন? (জবাবে) তিনি বলেন, আমাদের অজু নষ্ট না হলে এক অজুতেই আমরা সব ওয়াক্তের নামাজ আদায় করে নিই। (তিরমিজি, হাদিস: ৬০)

আরেকটি হাদিসে আনাস (রা.) বলেন, রাসূল (সা.) প্রত্যেক সালাতের সময় অজু করতেন। আমি বললাম, আপনারা কী করতেন? (জবাবে) তিনি বললেন, হাদাস (অজু ভঙের কারণ) না হওয়া পর্যন্ত আমাদের (পূর্বের) অজুই যথেষ্ট হতো। (বুখারি, হাদিস: ২১৪)

রাসুলুল্লাহ (সা.) এক অজুতেই সব নামাজ আদায় করার তথ্য পাওয়া যায় হাদিসে। যেমন- সুলাইমান ইবনে বুরাইদা (রা.) থেকে তার বাবার সূত্রে বর্ণিত হয়েছে, তিনি (বুরাইদা) বলেন, রাসূল (সা.) প্রতি ওয়াক্তের নামাজের জন্য নতুন করে অজু করে নিতেন। তিনি মক্কা বিজয়ের দিন একই অজু দিয়ে সব ওয়াক্তের নামাজ আদায় করলেন ও মোজার উপর মাসাহ করলেন। উমর (রা.) বলেন, আপনি এমন একটি কাজ করলেন যা এর আগে কখনো করেননি। (জবাবে) রাসুল (সা.) বললেন, আমি ইচ্ছে করেই (উম্মতের সুবিধার জন্য) এটি করলাম। (তিরমিজি, হাদিস: ৬১)

comment / reply_from

newsletter

newsletter_description