dark_mode
Monday, 05 December 2022
Logo

আবিষ্কৃত হয়েছে কৃত্রিম ভ্রুণ, কৃত্রিম উপায়ে মানুষ তৈরির দ্বারপ্রান্তে বিজ্ঞান!

আবিষ্কৃত হয়েছে কৃত্রিম ভ্রুণ, কৃত্রিম উপায়ে মানুষ তৈরির দ্বারপ্রান্তে বিজ্ঞান!

ভ্রুণ তৈরির একমাত্র উপায় হলো নারী ও পুরুষের শারীরিক সম্পর্ক। কিন্তু প্রকৃতির নিয়মের বিরুদ্ধাচরণ করে শারীরিক সম্পর্ক ছাড়াই কৃত্রিম উপায়ে মানুষ তৈরির প্রক্রিয়া চলছে। বিস্ময়কর শোনালেও সত্য যে, ইতোমধ্যে এই প্রক্রিয়ার সাফল্যের দ্বারপ্রান্তে চলে গেছে বিজ্ঞান।

 

শারীরিক সম্পর্ক ছাড়াই শুধু কোষ থেকে ইঁদুরের ভ্রুণ তৈরি করা সম্ভব হয়েছে গবেষণাগারে। তবে কি অচিরেই মানব ভ্রুণও তৈরি হবে গবেষণাগারে? নারী-পুরুষের মিলন ছাড়াই জন্ম নেবে অনাগত সন্তান?

 

প্রকৃতির নিয়মের তোয়াক্কা না করে এভাবে কৃত্রিম উপায়ে মানুষ তৈরি করার নৈতিকতা নিয়ে এরই মধ্যে বিতর্ক শুরু হয়ে গেছে। তারপরও কৃত্রিম উপায়ে ভ্রুণ তৈরিকে বিজ্ঞানের যুগান্তকারী ও তাৎপর্যপূর্ণ আবিষ্কার হিসেবেই দেখা হচ্ছে।

 

নিষিক্ত ডিম্বাণু ও শুক্রাণু ছাড়াই পৃথিবীর প্রথম ভ্রুণ তৈরির মতো এমন অসাধ্য সাধন করেছেন ইসরাইল ইউজম্যান ইনস্টিটিউট অব সায়েন্সের বিজ্ঞানীরা। তারা নিষিক্ত ডিম্বাণু ও শুক্রাণু ছাড়া শুধুমাত্র স্টেম সেল বা মূল কোষ ব্যবহার করে ইঁদুরের ভ্রুণ তৈরিতে সফল হয়েছেন।

 

অ্যাসিটেড রিপ্রোডাকশন টেকনোলজি পদ্ধতি অবলম্বন করে নিষিক্ত ডিম্বাণু ও শুক্রাণু ছাড়াই শুধুমাত্র কোষ থেকে পৃথিবীর প্রথম ভ্রুণ তৈরি করা হয়েছে। তাদের মতে, বিজ্ঞানের ইতিহাসে এ এক যুগান্তকারী সাফল্য।

 

ডিম্বাণু ও শুক্রাণু ছাড়াই শুধুমাত্র কোষ থেকে পৃথিবীর প্রথম ভ্রুণ তৈরি নিয়ে গবেষণার বিস্তারিত প্রকাশ করা হয়েছে সেল নামের বিজ্ঞান সাময়িকীতে।

 

এদিকে গবেষণাগারে ইঁদুরের ভ্রুণ তৈরি সম্ভব হলেও বিজ্ঞানীরা ধারণা করছেন, এখনই মানব ভ্রুণ তৈরি করা অতটা সহজ হবে না। তাছাড়া বৈজ্ঞানিক আবিষ্কারের নিরিখে এটা একটা মাইলফক হলেও প্রকৃতির বিরুদ্ধে গিয়ে এই পদ্ধতি প্রয়োগের নৈতিকতা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন তারা।

comment / reply_from

newsletter

newsletter_description