নাকের ড্রপ বা স্প্রে দিলে কি রোজা নষ্ট হবে?

170
রোজা রেখে রোজাদাররা কি এই ড্রপ ব্যবহার করতে পারবেন? নাকের ড্রপ ব্যবহার করলে কি রোজা ভেঙে যাবে?
রোজা রেখে রোজাদাররা কি এই ড্রপ ব্যবহার করতে পারবেন? নাকের ড্রপ ব্যবহার করলে কি রোজা ভেঙে যাবে?

সর্দির কারণে অনেক সময়ই নাক বন্ধ হয়ে যায়। শ্বাস-প্রশ্বাস নিতে বেশ কষ্ট হয়। এ অবস্থায় দু-তিন ফোঁটা অ্যান্টাজল বা আফরিনের মতো নাকের ড্রপ দারুণ স্বস্তি দিতে পারে। এমনকি করোনাভাইরাস থেকে রক্ষা পেতেও নাকের ড্রপ এবং স্প্রে আবিষ্কৃত হয়েছে। এছাড়া নাক কিংবা নাসারন্ধ্রের আরও কিছু সমস্যার কারণে নাকের ড্রপ অথবা স্প্রে ব্যবহারের পরামর্শ দিতে পারেন চিকিৎসক। প্রশ্ন হলো, রোজা রেখে রোজাদাররা কি এই ড্রপ ব্যবহার করতে পারবেন? নাকের ড্রপ ব্যবহার করলে কি রোজা ভেঙে যাবে?

আধুনিক চিকিৎসা বিজ্ঞানের দ্বারা এটা প্রমাণিত যে, নাকে ড্রপ দিলে তা সোজা পাকস্থলী পর্যন্ত পৌঁছে যেতে পারে। উদাহরণ হিসবে রাইস টিউবের কথা বলা যায়। যেসব রোগী মুখে খাবার খেতে পারেন না তাদের নাকে রাইস টিউব লাগিয়ে দেওয়া হয়। নাকে লাগানো এই রাইস টিউব দিয়ে খাবার পাকস্থলীতে পৌঁছে যায়। নাকের ড্রপও নাসারন্ধ্র দিয়ে খাদ্যনালী বেয়ে পাকস্থলীতে পৌঁছে যেতে পারে। সেক্ষেত্রে রোজা ভঙ্গ হয়ে যাবে। তাই রোজা রাখা অবস্থায় নাকের ড্রপ ব্যবহার করা ঠিক না।

নাকের ড্রপই শুধু না, তেল বা পানি কোনো কিছুই রোজা রাখা অবস্থায় নাকে প্রবেশ করানো যাবে না। মহানবী (সা.) হজরত লাকিত ইবনে সাবুরাহ (রা.) কে বলেন, তুমি ওযু পরিপূর্ণ কর, তোমার আঙুলগুলো খিলাল কর এবং নাকে ভালো করে পানি দাও। তবে হ্যাঁ, রোজাদার হলে নাকে পানি দিও না। (তিরমিজি, হাদিস : ৭৭৮)