মানুষের কামড়েও বিষ আছে!

290
যদি মানুষ কোনো কুকুরকে কামড় দেয় তাহলে কী ঘটবে? কিংবা এক মানুষ আরেক মানুষকে কামড় দিলেই বা কী ঘটবে?
যদি মানুষ কোনো কুকুরকে কামড় দেয় তাহলে কী ঘটবে? কিংবা এক মানুষ আরেক মানুষকে কামড় দিলেই বা কী ঘটবে?

কুকুরের কাজ কুকুর করেছে
কামড় দিয়েছে পায়,
তা বলে কুকুরে কামড়ানো কি
মানুষের শোভা পায়?

ছন্দের জাদুকর সত্যেন্দ্রনাথ দত্ত বলেছিলেন এ কথা। তবে তার কথা না মেনে সত্যিই যদি মানুষ কোনো কুকুরকে কামড় দেয় তাহলে কী ঘটবে? কিংবা এক মানুষ আরেক মানুষকে কামড় দিলেই বা কী ঘটবে?

চিকিত্‍সাশাস্ত্র অনুযায়ী, কুকুড় কামড় দিলে মানুষের শরীরে বিষ প্রবেশ করে। একজন মানুষ কামড়ালেও কুকুরের কামড়ের মতোই সম-পরিমাণ বিষ প্রবেশ করে শরীরে। কারণ মানুষের মুখে বাস করে হরেক রকমের ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া ও জীবাণু।

কুকুর বা অন্য কিছু কিছু পশুর কামড় মানুষের শরীরের জন্য ক্ষতিকর। জলাতঙ্কের মতো কঠিন রোগ হয় কুকুরের কামড়ে। তাই কুকুর বা অন্য কোনো পশু কামড় দিলে দ্রুত চিকিৎসকের শরণাপন্ন হওয়া উচিৎ। ঠিক একই কথা প্রযোজ্য মানুষের কামড়ের ক্ষেত্রেও। একজন মানুষ কামড়ালে যে পরিমাণ বিষ শরীরে ঢোকে তা গুরুতর ক্ষতি করতে পারে। এমনকি রতিক্রিয়ার সময় সঙ্গীকে লাভ বাইট দিলেও যে বিষ শরীরে ঢোকে তাও ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে।

কোনো মানুষ যদি অন্য মানুষকে অনেক জোরে কামড় দেয় তাহলে ত্বকের উপরিস্তর মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। এমনকি তা থেকে গুরুতর সংক্রমণের ঘটনাও ঘটতে পারে।

মানুষের কামড়ের কারণে সংক্রমণ ঘটলে কিছু লক্ষণ প্রকাশ পায়। যেমন কামড় খাওয়ার কয়েক দিনের মধ্যেই আক্রান্ত স্থান ফুলে যায় ও ক্ষতস্থানের চারপাশে পুঁজ জমে। এ অবস্থায় দ্রুত চিকিৎসকের কাছে গিয়ে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা না নিলে না সংক্রমণ গুরুতর আকার ধারণ করতে পারে।

মানুষ কামড়ালে প্রাথমিক চিকিৎসা হিসেবে তৎক্ষণাত প্রচুর পরিমাণ পরিস্কার পানি দিয়ে ক্ষতস্থান ভালো করে ধুয়ে ফেলতে হবে। রক্ত বের হওয়া না থামতে চাইলে পরিষ্কার শুকনো কাপড় বা তুলা দিয়ে ক্ষতস্থান চেপে ধরতে হবে। এরপর দ্রুত চিকিৎসকের কাছে যেতে হবে।