ভারতে ধর্ষণের শিকার গুইসাপ, গ্রেপ্তার ৪ (ভিডিও)

550

ভারতে প্রতিনিয়তই নারী ধর্ষণের ঘটনা ঘটছে। প্রতিবাদের পরও থামছে না জঘন্য এই অপরাধ। ভারতীয়রা বিকৃত রুচির পরিচয় দিয়েছে পশু ধর্ষণের মাধ্যমেও। আটজন মিলে গণধর্ষণ করায় অন্তঃসত্ত্বা ছাগলের মৃত্যুর মতো আজব ঘটনা ঘটেছে ভারতের হরিয়ানায়। এছাড়া রাজস্থানে ঘটেছে গরু ধর্ষণের ঘটনা। এবার অতীতের সব রেকর্ড ভেঙে মহারাষ্ট্রে গুইসাপ গণধর্ষণ করে হইচই ফেলে দিয়েছেন ভারতীয় চার নাগরিক।

বিকৃত রুচির ওই চার ভারতীয় শুধু গুইসাপ ধর্ষণ করেই ক্ষান্ত হয়নি, ধর্ষণের পর গুইসাপটিকে হত্যা করে খেয়েও ফেলেছে। শুধু তাই নয়, পুরো ঘটনার ভিডিও মোবাইল ফোনেও ধারণ করেছে এই চার নরপশু।

ন্যাক্কারজনক এই ঘটনা ঘটেছে ভারতের রত্নাগিরি জেলার চন্দোলি জাতীয় উদ্যানে। গুইসাপ ধর্ষণের অভিযোগে চারজনকে গ্রেপ্তারের পর প্রাথমিক তদন্তে ঘটনার সত্যতাও খুঁজে পেয়েছে পুলিশ।

যে চার নরপশুকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে তারা হলো- রত্নাগিরি জেলার গোথান গ্রামের জনার্দন কামতেকার, মঙ্গেশ কামতেকার, অক্ষয় কামতেকর ও সন্দীপ তুকারাম।

রত্নাগিরির চন্দোলি জাতীয় উদ্যানে বণ্যপ্রাণীর ওপর নজরদারির জন্য অনেকগুলো ক্যামেরা লাগানো আছে। ঘটনার সময় সেসব ক্যামেরার একটি খুলে ফেলে চারজন মিলে। কিন্তু অন্য আরেকটি ক্যামেরায় পুরো ঘটনা ধরা পড়ে। সেখানে ধারণকৃত ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, বেআইনিভাবে চন্দোলি জাতীয় উদ্যানে প্রবেশ করে অভিযুক্ত চারজন। তাদের একজনের হাতে আগ্নেয়াস্ত্রও ছিল।

এদিকে মহারাষ্ট্র বনবিভাগ সূত্রে জানা গেছে, বন্যপ্রাণি (সুরক্ষা) আইনের কয়েকটি ধারায় অভিযুক্ত চারজনের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলায় তাদের সর্বোচ্চ সাত বছর পর্যন্ত জেল হতে পারে।