জিডির পর হিরো আলমের চ্যানেল থেকে উধাও উই লাভ মেসি (ভিডিও)

131

ডিশ ব্যবসায়ী থেকে রীতিমতো সোশ্যাল মিডিয়ার তারকা বনে গেছেন হিরো আলম। সিনেমার নায়কও হয়েছেন। হাস্যকর সব গান, ভিডিও ইউটিউবে আপলোড করার পাশাপাশি বিতর্কিত নানা কর্মকান্ড ঘটিয়ে হরহামেশাই ভাইরাল হন তিনি। এবার তিনি খবরের শিরোনাম হলেন প্রতারণার অভিযোগে তার বিরুদ্ধে জিডি হওয়ায়।

গান, সিনেমা, কৌতুক, মিউজিক ভিডিও ছাড়াও দৈনন্দিন জীবনের নানা ঘটনা হাস্যরসের মাধ্যমে তুলে ধরে ইউটিউবে এক শ্রেণির দর্শকের কাছে বিপুল জনপ্রিয়তা পেয়েছেন হিরো আলম। হিরো আলম অফিসিয়াল নামের ইউটিউব চ্যানেল রয়েছে তার। বর্তমানে চ্যানেলটির সাবস্ক্রাইবার সংখ্যা ১৪ লাখ।

হিরো আলমের বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগে রাজধানীর কলাবাগান থানায় জিডি করেছেন নিশক তারেক আজিজ। জিডি নম্বর-২৮৪।

জিডিতে বলা হয়েছে, ২০২১ সালের ৭ জুলাই কোপা-আমেরিকা ফাইনাল খেলা উপলক্ষে বন্ধন টিভির জন্য ব্রাজিল বনাম আর্জেন্টিনা ম্যাচের আগে মেসিকে নিয়ে উই লাভ মেসি শিরোনামে একটি গান তৈরি করা হয়।

গানটি বন্ধন টিভির ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড করা হয়। পরে বিবাদী মো. আশরাফুল আলম সাঈদ ওরফে হিরো আলম অনুমতি ছাড়াই গানটি হিরো আলম অফিসিয়াল এবং হিরো আলম নামের ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড করেন। অথচ গানটি গাওয়ার পারিশ্রমিক হিসেবে বিবাদীকে নগদ অর্থ পরিশোধ করা হয়েছে গানের গীতিকার ও সুরকার আকাশ নিবিরের মাধ্যমে।

উই লাভ মেসি গানের প্রযোজক নিশক তারেক আজিজের অভিযোগ, হিরো আলমকে উই লাভ মেসি গানের বিষয়টি জানালে তিনি অন্যায়ভাবে বন্ধন টিভির ইউটিউব চ্যানেলে উল্টো স্ট্রাইক দেন। শুধু তাই নয়, ফোনে বিভিন্ন রকমের ভয়ভীতি প্রদর্শন করেন ও চ্যানেলটি বন্ধ করে দেওয়ার হুমকি দেন।

এদিকে জিডি হওয়ার পর হিরো আলম অফিসিয়াল এবং হিরো আলম ইউটিউব চ্যানেলের কোথাও উই লাভ মেসি গানটির ভিডিও খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। ধারণা করা হচ্ছে, আইনি ঝামেলার ভয়ে ইউটিউব চ্যানেল থেকে উই লাভ মেসি গানটি সরিয়ে ফেলেছেন হিরো আলম নিজেই।