দুর্নীতির মামলায় কারাগারে হাজী সেলিম (ভিডিও)

120

দুর্নীতির মাধ্যমে অবৈধভাবে সম্পদ অর্জনের দায়ে দুদকের মামলায় আগেই ১০ বছর কারাদন্ড পেয়েছিলেন ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য হাজী সেলিম।

ব্যবসায়ী ও ঢাকা-৭ আসনের প্রভাবশালী এই এমপি সাজার পরোয়ানা মাথায় নিয়েই গত ২ মে চিকিৎসার কারণ দেখিয়ে ব্যাংকক যান। এর পরপরই গুঞ্জন ওঠে, বিদেশে পালিয়ে গেছেন হাজী সেলিম। অন্যদিকে দণ্ডপ্রাপ্ত খালেদা জিয়া উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে যেতে চেয়েও যেতে পারছেন না।

এই ঘটনায় বিএনপি নেতারা সমালোচনায় মুখর হয়ে ওঠেন। এর মধ্যেই গত ৫ মে ব্যাংকক থেকে দেশে প্রত্যাবর্তন হয় হাজী সেলিমের। তিনি দেশে ফেরারর পর থেকেই শোনা যায়, আত্মসমর্পণ করবেন হাজী সেলিম।

অবশেষে রোববার, ২২ মে বিকেলের দিকে ১০ বছরের সাজাপ্রাপ্ত আসামী হাজী সেলিম আত্মসমর্পণ করেন। এসময় অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে তার জামিন আবেদন করা হয়। অল্প কিছুক্ষণ শুনানির পরই তার জামিন আবেদন নাকচ করে দেন আদালত। এসময় তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেওয়া হয়।

এদিন হাজী সেলিমকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৭ এর বিচারক শহিদুল ইসলাম।

রোববার বিকেল ৩টার একটু পরে আদালতে হাজির হন হাজী সেলিম। বিকেল সোয়া ৩টার দিকে তার জামিন আবেদনের ওপর শুনানি আরম্ভ হয়। আধা ঘন্টারও কম সময় ধরে সংক্ষিপ্ত শুনানি অনুষ্ঠিত হওয়ার পরপরই ঢাকা-৭ আসনের এমপি হাজী সেলিমকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন বিচারক শহিদুল ইসলাম।

প্রসঙ্গত, অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে ২০০৭ সালে সাংসদ হাজী সেলিমের বিরুদ্ধে লালবাগ থানায় মামলা করে দুর্নীতি দমন কমিশন। উক্ত মামলায় ১৩ বছরের কারাদণ্ড প্রদান করা হয় তাকে। গত বছর তার দশ বছর সাজা বহাল রেখে তিন বছরের সাজা থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।