৩১ মে নয়, ৫ জুন থেকে হজ ফ্লাইট শুরু

108
ধর্ম মন্ত্রণালয় ৩১ মে এর বদলে আগামী জুন মাসের ৫ তারিখ থেকে হজ ফ্লাইট শুরু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।
ধর্ম মন্ত্রণালয় ৩১ মে এর বদলে আগামী জুন মাসের ৫ তারিখ থেকে হজ ফ্লাইট শুরু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

ধর্ম মন্ত্রণালয় ৩১ মে এর বদলে আগামী জুন মাসের ৫ তারিখ থেকে হজ ফ্লাইট শুরু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

মঙ্গলবার, ২৪ মে মন্ত্রণালয়ের এক সভায় এই সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

এর আগে সোমবার বিকেলে সৌদি আরব প্রস্তুতি সম্পন্ন করতে না পারায় হজ ফ্লাইটের পূর্ব নির্ধারিত তারিখ ৩১ মে এর বদলে ৫ জুন থেকে চালুর অনুরোধ করে বাংলাদেশকে চিঠি দেয় সৌদি কর্তৃপক্ষ।

এরপর সৌদি আরব কর্তৃপক্ষ বাংলাদেশ অংশে তাদের প্রস্তুতি সম্পন্ন করতে পারেনি জানিয়ে হজ ফ্লাইট শুরুর তারিখ পেছানোর জন্য বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ে চিঠি পাঠায় ধর্ম মন্ত্রণালয়। চিঠিতে বলা হয়, এতদিন হজযাত্রার প্রস্তুতি চলছিল ৩১ মে হজ ফ্লাইট শুরুর সম্ভাব্য তারিখ ধরে। ধর্ম মন্ত্রণালয় এখন চাইছে আগামী ৫ জুন থেকে হজযাত্রীদের সৌদি আরবে পাঠানো শুরু হোক।

চিঠিতে আরও বলা হয়, ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর হয়ে যে হজযাত্রীরা যাবেন তাদের সবার সৌদি আরবের ইমিগ্রেশন ঢাকাতেই করার কথা রয়েছে। এই প্রক্রিয়াকে বলা হচ্ছে রুট টু মক্কা ইনিশিয়েটিভ।

সৌদি কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলাপ-আলোচনার ভিত্তিতেই ৩১ মে প্রথম হজ ফ্লাইট পরিচালনার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল ধর্ম মন্ত্রণালয়। সে অনুযায়ী সবরকম প্রস্তুতিও চলছিল।

উল্লেখ্য, চলতি বছর হজের সম্ভাব্য তারিখ ৮ অথবা জুলাই। বিষয়টি নির্ভর করছে চাঁদ দেখার উপর। এবছর বাংলাদেশ থেকে সৌদি আরবে গিয়ে হজ পালনের সুযোগ পাচ্ছেন মোট ৫৭,৫৮৫ জন। মোট হজ যাত্রীর পঞ্চাশ ভাগই পরিবহন করবে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স। ৭৫টি হজ ফ্লাইট পরিচালনার প্রস্তুতি নিয়েছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স। হজে যেতে প্রত্যেক যাত্রীকে বিমান ভাড়া বাবদ ১ লাখ ৪০ হাজার টাকা খরচ করতে হবে।

করোনা মহামারির কারণে হজ যাত্রীদের কঠোর স্বাস্থ্যবিধি মেনে সৌদি আরবে যেতে হবে। করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেট ছাড়াও দুই ডোজ করোনা টিকা নেওয়ার সার্টিফিকেট অবশ্যই সঙ্গে রাখতে হবে। এবার ৬৫ বছরের ওপরের কেউ হজে যেতে পারছেন না।