৩০ বছরে ৪৬ সন্তানের বাবা গর্ডি, লক্ষ্য হাজার সন্তান (ভিডিও)

332

কইল গর্ডি। বয়স সবেমাত্র ৩০। মার্কিন মুল্লুকের বাসিন্দা তিনি। দেশটিতে এই বয়সে অনেকে বিয়েই করেন না। অথচ মাত্র ৩০ বছরের মধ্যে একটি কিংবা দুটি নয়, ৪৬টি সন্তানের বাবা বনে গেছেন ছিমছাপ পরিপাটি চেহারার এই যুবক। ঘটনার এখানেই শেষ নয়। ১০০০ সন্তানের গর্বিত বাবা হতে চান বলে জানিয়েছেন গর্ডি নিজেই।

কইল গর্ডি বাস করেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায়। তাকে পেশাদার বাবা বলা যায়। কারণ পেশায় তিনি একজন স্পার্ম ডোনার। নিজের স্পার্ম ডোনেট করে ইতোমধ্যে ৪৬টি সুস্থ-সবল শিশুকে পৃথিবীর আলো দেখিয়েছেন কর্ডি। এই সংখ্যাটা ৫৫ হয়ে যেতে আর খুব বেশি সময় লাগবে না। কারণ পাইপলাইনে আছে আরও নয়টি অনাগত সন্তান। হাজার সন্তানের বাবা হওয়ার লক্ষ্য নিয়ে ছুটে চলেছেন কর্ডি।

এদিকে এতগুলো সুস্থ-সবল সন্তানের বাবা হওয়ার পর যুক্তরাষ্ট্রের সীমানা পেরিয়ে যুক্তরাজ্যেও পৌঁছে গেছে গর্ডির খবর। নিঃসন্তান দম্পতি থেকে শুরু করে সমকামী নারী দম্পতিরাও সন্তানের আশায় যোগাযোগ করছেন গর্ডির সঙ্গে। সম্প্রতি যুক্তরাজ্যের কেমব্রিজে বসবাসকারী লেজবিয়ান দম্পতিকে সন্তান নিতে সাহায্য করেন গর্ডি।

কোনো প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে নয়, কর্ডি সরাসরি নিজেই স্পার্ম ডোনেট করেন। এই কাজের জন্য কর্ডির সঙ্গে যোগাযোগ করতে হয় সোশ্যাল মিডিয়ায়। নিঃসন্তান দম্পতিদের জন্য স্পার্ম ডোনেটের পাশাপাশি সন্তান জন্মদানে আগ্রহী অনেক নারীর সঙ্গে বিছানায়ও শুয়েছেন কর্ডি।

স্পার্ম ডোনেট নতুন কোনো বিষয় নয়। বিশ্বের বিভিন্ন দেশেই এটি বৈধ। সেসব দেশে অনেকেই স্বেচ্ছায় কাজটি করেন। তাদের কাছে থেকে শুক্রাণু সংগ্রহ করে বিভিন্ন হাসপাতাল। পরে সেই শুক্রাণু সরবরাহ করা হয় নিঃসন্তান দম্পতিদের কাছে। অধিকাংশ সময়েই স্পার্ম ডোনারের নাম, পরিচয় গোপন রাখা হয়। তবে এক্ষেত্রে ব্যতিক্রম কর্ডি। কোনোরকম রাখঢাক ছাড়াই নিজের নাম-পরিচয় জানিয়ে স্পার্ম ডোনেট করেন তিনি।

২০১৪ সালে কর্ডি প্রথম স্পার্ম ডোনেট করেন তার এক নারী বন্ধুকে। পরে সেই নারী ছেলে সন্তানের জন্ম দেন। সেই হিসেবে ৩০ বছর বয়সী কর্ডির প্রথম সন্তানের বয়স ইতোমধ্যে ৭ পেরিয়ে গেছে।