সেহরি না খেলে রোজা আদায় হবে?

160
কেউ যদি সেহরি না খেয়ে রোজা রাখে তাহলে কি তার রোজা আদায় হবে? উত্তরটা হলো, সেহরি না খেয়েও রোজা রাখা যায়। তবে সেহরির সময় সামান্য কিছু হলেও খাওয়াটা বরকতময়।
কেউ যদি সেহরি না খেয়ে রোজা রাখে তাহলে কি তার রোজা আদায় হবে? উত্তরটা হলো, সেহরি না খেয়েও রোজা রাখা যায়। তবে সেহরির সময় সামান্য কিছু হলেও খাওয়াটা বরকতময়।

আসছে পবিত্র রমজান মাস। সিয়াম সাধনার এই মাসে সেহরি আর ইফতারের জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করে থাকেন মুসলমানরা। রোজা রাখার নিয়ত করে সেহরি খাওয়া সুন্নত। সেহরি খুবই বরকতময় খাবার।

কেউ যদি সেহরি না খেয়ে রোজা রাখে তাহলে কি তার রোজা আদায় হবে? উত্তরটা হলো, সেহরি না খেয়েও রোজা রাখা যায়। তবে সেহরির সময় কিছু হলেও খাওয়াটা বরকতময়। কেউ যদি সেহরির সময় ঘুম থেকে উঠতে অপারগ হয় তবে তাকেও রোজা রাখতে হবে।

এ বিষয়ে মহানবী (সা.) বলেছেন, তোমরা সেহরি খাও। কেননা সেহরিতে আল্লাহ তায়ালা বরকত রেখেছেন। (বুখারি, হাদিস : ১৯২৩; মুসলিম, হাদিস : ১০৯৫; সুনানে ইবনে মাজাহ, হাদিস : ১৬৯৩)

মহানবী (সা.) আরও বলেছেন, ‘আহলে কিতাব তথা ইহুদি-খ্রিস্টান আর মুসলমানদের রোজার মধ্যে শুধু সেহরি খাওয়াই পার্থক্য। অর্থাৎ তারা সেহরি খায় না, আর আমরা সেহরি খাই।’ (মুসলিম, হাদিস : ১৮৪৩; তিরমিজি, হাদিস : ৬৪২)

সেহরির সময় যে পেট ভরেই খেতে হবে এমন কোনো কথা নেই। হালকা খাবার খেয়েও সেহরি করা যায়। ক্ষুধা না থাকলে সেহরির সময় খেজুর খাওয়া উত্তম।

দেরিতে সেহরি খাওয়া উত্তম। নির্ধারিত সময়ের আগে সেহরি খাওয়া হয়ে গেলে শেষ মুহূর্তে হালকা কিছু খাবার খেলেও সেহরির ফজিলত অর্জন করা যাবে।