সূর্য পৃথিবীর চারদিকে ঘোরে দাবি তুলে ভাইরাল তিনি (ভিডিও)

116

পৃথিবী এবং অন্যান্য গ্রহ সূর্যের চারদিকে ঘোরে। এই তত্ত্ব বৈজ্ঞানিকভাবে প্রতিষ্ঠিত। এই সত্য প্রকাশ করায় প্রাণ পর্যন্ত দিতে হয়েছে জ্যোতির্বিজ্ঞানী ব্রুনোকে। পরবর্তী সময়ে জ্যোতির্বিজ্ঞানী কোপার্নিকাস তত্ত্বটি প্রতিষ্ঠিত করেন। আরও পরে তা প্রমাণ করেন বিজ্ঞানী গ্যালিলিও। প্রমাণিত সেই তত্ত্বে এবার বাধ সাধলেন চুয়াডাঙ্গার আমানতউল্লাহ।

নিজেকে জ্যোতির্বিজ্ঞানী দাবি করে আলমডাঙ্গা উপজেলার নাগদাহ ইউনিয়নের পাইকপাড়া গ্রামের আমানতউল্লাহ দাবি করেছেন, পৃথিবী সূর্যের চারদিকে ঘোরে- এই তত্ত্ব সঠিক নয়। বিগত চারশো বছর ধরে মানুষ এই ভুল তত্ত্ব বিশ্বাস করে আসছে। পৃথিবী সূর্যের চারদিকে নয়, বরং সূর্যই পৃথিবীর চারদিকে ঘোরে। এমন দাবি তুলে সোশ্যাল মিডিয়ায় রীতিমতো ভাইরাল হয়ে গেছেন আমানতউল্লাহ।

আমানতউল্লাহ আরও দাবি করেছেন, শুক্র ও বুধ গ্রহ পৃথিবীর চারদিকে ঘুরছে। পৃথিবী ঘুরছে নিজের কক্ষপথে। আর এটাই চিরন্তন সত্য।

আমানতউল্লাহ জানান, পাইকপাড়া গ্রামের জরাজীর্ণ ঘরে বসে ২৬ বছর ধরে গবেষণার পর পৃথিবীকেন্দ্রিক বিশ্ব তত্ত্বের মডেল আবিষ্কার করেছেন তিনি। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে সাধারণ মানুষ তার আবিষ্কার দেখতে আসেন। বিভিন্ন মেলায় তিনি বিজ্ঞান বিষয়ক তার আবিষ্কার নিয়ে প্রদর্শনীর ব্যবস্থা করেন। এসব কাজ করতে গিয়ে তাকে পৈত্রিক জমি পর্যন্ত বেচতে হয়েছে।

নিজের বাড়িতে অনেকগুলো মডেল তৈরি করেছেন আমানতউল্লাহ। পৃথিবী তত্ত্বের উপর তিনি বেশ কয়েকটি বইও লিখেছেন। এই বইগুলোতে তার গবেষণার বিষয়বস্তু তুলে ধরা হয়েছে। তার বিশ্বাস, সরকারের সহায়তা পেলে তার আবিষ্কারের মাধ্যমে দেশকে আরেক ধাপ এগিয়ে নিতে পারবেন। এই তত্ত্ব স্থানীয় অনেকেই বিশ্বাস করেছেন। অনেকের কাছেই আবার তিনি হয়েছেন হাসির পাত্রে পরিণত হয়েছেন।

এতকিছুর পরও হাল ছাড়তে রাজি নন আমানতউল্লাহ। তার মতে, অনেক গবেষণার শুরুতেই বিজ্ঞানীদের পাগল বলে উপহাস করা হয়েছে। নিজের গবেষণার প্রতি যথেষ্ট প্রমাণ রয়েছে বলেও দাবি করেন আমানতউল্লাহ।