সিলেটে দুই শিক্ষার্থীকে মারধর, প্রধান আসামী গ্রেফতার

126
সিলেটের ওসমানী হাসপাতালে দুই শিক্ষার্থীকে মারধরের ঘটনায় প্রধান আসামী গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার (৩ আগষ্ট) দিবাগত রাত সাড়ে ১২টায় শাহপরাণ এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।
সিলেটের ওসমানী হাসপাতালে দুই শিক্ষার্থীকে মারধরের ঘটনায় প্রধান আসামী গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার (৩ আগষ্ট) দিবাগত রাত সাড়ে ১২টায় শাহপরাণ এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

আবুল কাশেম রুমন, সিলেট থেকে : সিলেটের ওসমানী হাসপাতালে দুই শিক্ষার্থীকে মারধরের ঘটনায় প্রধান আসামী গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার (৩ আগস্ট) দিবাগত রাত সাড়ে ১২টায় শাহপরাণ এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সিলেট মহানগর পুলিশের উপ কমিশনার (উত্তর) আজবাহার আলী শেখ। এর আগে সোমবার (১ আগস্ট) দিবাগত রাত দেড়টার দিকে মামলার অপর দুই আসামি সাঈদ হাসান রাব্বি ও এহসান আহমদকে গ্রেফতার করে কোতোয়ালি থানা পুলিশ।

এদিকে মামলার আসামিদের গ্রেফতারে বুধবার দুপুরে বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত সময় বেঁধে দিয়ে ছিলেন ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আন্দোলনরত ইন্টার্ন চিকিৎসক ও শিক্ষার্থীরা। এই সময়ের মধ্যে দাবি পুরণ না হলে বহির্বিভাগসহ ওসমানী হাসপাতালের সব কার্যক্রম বন্ধ কওে দেওয়ারও ঘোষণা দেন তারা। বুধবার বিকেলে সড়ক অবরোধ কর্মসূচি প্রত্যাহার শেষে এ ঘোষণা দেন আন্দোলনকারীরা।

এর আগে দুপুরের দিকে ওসমানী হাসপাতালের ইন্টার্ন চিকিৎসক ও শিক্ষার্থীরা মেডিকেল সড়ক অবরোধ করেন। পরে বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত সময় বেঁধে দিয়ে অবরোধ প্রত্যাহার কওে নেন।
অপরদিকে ওসমানী মেডিকেল কলেজের দুই শিক্ষার্থীর ওপর হামলা ও নারী ইন্টার্ন চিকিৎসককে লাঞ্চিতের অভিযোগে ৮ জনকে আসামি করে মঙ্গলবার (২ আগষ্ট) দুপুওে কোতোয়ালি থানায় দুটি মামলা দায়ের করা হয়। ওসমানী হাসপাতালের প্রশাসনিক কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) মোহাম্মদ হানিফ এবং ওসমানী মেডিকেল কলেজের পিএ-টু প্রিন্সিপাল ও সচিব (অতিরিক্ত দায়িত্ব) মাহমুদুল রশিদ বাদী হয়ে পৃথক দুটি মামলা দায়ের করেন।

দুই মামলার আসামিরা হলেন- দিব্য, আব্দুল্লাহ, এহসান, মামুন, সাজন, সুজন, সামি ও সাঈদ হাসান রাব্বি। আসামিদের সবাই ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত বলে জানা গেছে।