সারিয়াকান্দিতে অবৈধ সেচ সংযোগ

99

পলাশ মন্ডল, সারিয়াকান্দি (বগুড়া) প্রতিনিধি : বগুড়ার সারিয়াকান্দিতে উপজেলা সেচ কমিটিকে পাস কাটিয়ে অবৈধভাবে পল্লীবিদ্যুতের সেচ সংযোগ প্রদান করা হয়েছে। এর সাথে জড়িত রয়েছে পল্লী বিদ্যুত অফিসের কিছু অসাধু কর্মকর্তা। উপজেলা সেচ কমিটিকে পাস কাটিয়ে ছাড়পত্র ছাড়া উপজেলার কামালপুর, কুতুবপুর, ভেলাবাড়ি ও চন্দনবাইশা এ ৪টি ইউনিয়নের কয়েকটি গ্রামে অবৈধভাবে বেশ কিছু পল্লী বিদ্যুতের সেচ সংযোগ দেয়া হয়েছে।

জানা গেছে, বিবিরপাড়া গ্রামের জাকিরুল, হাওড়াখালি গ্রামের লাল মিয়া, রাশিদুল, রেজাউল, জাকির হোসেনকে ছাড়পত্র ছাড়া সেচ সংযোগ দেয়া হয়েছে। এছাড়াও সুতানারা, গজারিয়া, পাইকরতলী, দড়িপাড়া, কুতুবপুর সোলারতাইড়, মাছিরপাড়া, জোড়গাছা ও চরচন্দনবাইশা গ্রামেও কয়েকজনকে ছাড়পত্র ছাড়া সেচ সংযোগ দেয়া হয়েছে।

আরো জানা গেছে, সেচ কমিটিতে আবেদন না করেও মাছিরপাড়া গ্রামের রকেট নামে এক ব্যক্তিকে সেচ সংযোগ প্রদান করা হয়েছে। তদন্ত করলে ছাড়পত্র ছাড়া এরকম অবৈধ সেচ সংযোগের আরো খোঁজ পাওয়া যাবে। একজন ইচ্ছুক সেচ গ্রাহক পল্লী বিদ্যুতের সেচ সংযোগ নিতে উপজেলা সেচ কমিটির নিকট ছাড়পত্রের জন্য আবেদন করলে উপজেলা সেচ কমিটির সদস্য সচিব বিএডিসির একজন কর্মকর্তা আবেদনটির তদন্ত করে অনুমোদন করা যাবে কিনা সেচ কমিটির সভায় উপস্থাপন করেন। যেসব আবেদন নীতিমালার মধ্যে পড়ে সে সব আবেদনই শুধু অনুমোদন করে ছাড়পত্রের অনুমোদন করা হয়। গত ৩০ ডিসেম্বর/২০২১ তারিখে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা সেচ কমিটির সভাপতির সভাপতিত্বে ২০৮টি সেচ গ্রাহকের আবেদন নিয়ে উপজেলা সেচ কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়।

নীতিমালার মধ্যে পড়ায় সেচ কমিটির সভায় ৮১টি গ্রাহকের আবেদন সেচ সংযোগের জন্য অনুমোদিত করে ছাড়পত্র দেয়া হয়। নীতিমালার মধ্যে না পড়ায় শতাধিক আবেদন অনুনোমোদিত রাখা হয়। সেচ কমিটির ছাড়পত্র ছাড়া পল্লী বিদ্যুতের সেচ সংযোগ প্রদান করা হয় না। তারপরেও কীভাবে অবৈধভাবে গোপনে পল্লী বিদ্যুতের সেচ সংযোগ প্রদান করা হলো বিষয়টি ভাবিয়ে তুলেছে অন্যান্য সেচ গ্রাহককে। অবৈধভাবে সেচ সংযোগ প্রদানে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য উপজেলা নির্বাহী অফিসার, বগুড়া পল্লী বিদ্যুত সমিতি -২ এর জেনারেল ম্যানেজার এবং বিএডিসি বগুড়ার উপ-প্রকৌশলীর নিকট লিখিত অভিযোগ করেছেন ছাইফুল ইসলাম নামে এক ব্যক্তি। বিষয়টি জানাজানি হলে চিন্তায় পড়েছেন ছাড়পত্র ছাড়া সেচ সংযোগ পাওয়া গ্রাহকরা।

এ ব্যাপারে বগুড়া পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ সারিয়াকান্দি জোনাল অফিসের ওয়ারিং পরিদর্শক সাদিকুল ইসলামের নিকট জানতে চাইলে তিনি বলেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট অভিযোগ দিয়েছে। তিনি তদন্ত করে ব্যবস্থা নিবেন।

বগুড়া পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর জেনারেল ম্যানেজার মোঃ আমজাদ হোসেন বলেন, অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত কার্যক্রম চলছে। তদন্তের পর আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বিএডিসি বগুড়ার উপ প্রকৌশলী আসমল ইসলাম বলেন, অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। বিষয়টির তদন্ত কার্যক্রম চলছে।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ রেজাউল করিম বলেন, অভিযোগের প্রাথমিক তদন্তে সত্যতা পাওয়া গেছে। প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।