সারিয়াকান্দিতে কিশোরী ধর্ষণ, গৃহশিক্ষক গ্রেপ্তার

151
কিশোরী ছাত্রীকে ধর্ষণের দায়ে মধ্যবয়সী এক গৃহশিক্ষককে গ্রেপ্তার করেছে বগুড়ার সারিয়াকান্দি থানা পুলিশ।
কিশোরী ছাত্রীকে ধর্ষণের দায়ে মধ্যবয়সী এক গৃহশিক্ষককে গ্রেপ্তার করেছে বগুড়ার সারিয়াকান্দি থানা পুলিশ।

সারিয়াকান্দি (বগুড়া) প্রতিনিধি : কিশোরী ছাত্রীকে ধর্ষণের দায়ে মধ্যবয়সী এক গৃহশিক্ষককে গ্রেপ্তার করেছে বগুড়ার সারিয়াকান্দি থানা পুলিশ।

১৬ বছর বয়সী ওই কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে মঙ্গলবার রাতে গ্রেপ্তারকৃত গৃহশিক্ষকের নাম ইয়াছিন আলী (৪৫)। তিনি গাবতলী উপজেলার বালিয়াদিঘী ইউনিয়নের দড়িপাড়া গ্রামের আবদুল কুদ্দুসের ছেলে।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, সারিয়াকান্দির ভেলাবাড়ী ইউনিয়নের ছাইহাটা গ্রামের ১৬ বছর বয়সী এক কিশোরীর গৃহশিক্ষক ইয়াছিন আলী। প্রাইভেট পড়ানোর ফাঁকে কিশোরীটির সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে তোলে লম্পট ইয়াছিন।

চলতি বছরের ২৯ মার্চ তারিখে গাবতলী উপজেলার একটি বাড়িতে ওই কিশোরীকে ফুঁসলিয়ে নিয়ে যায় ইয়াছিন আলী। সেখানে ওই কিশোরীর সঙ্গে অনৈতিক কাজে লিপ্ত হয়।পরবর্তী সময়ে ঘটনাটি জানাজানি হয়ে যায়।

মঙ্গলবার, ১০ মে কিশোরীর মা বাদী হয়ে সারিয়াকান্দি থানা ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। মামলা হওয়ার পরপরই অভিযুক্ত ধর্ষককে গ্রেপ্তারে তৎপরতা শুরু করে পুলিশ। মঙ্গলবার রাতেই ধর্ষককে তার নিজ গ্রাম বালিয়াদিঘীর দড়িপাড়া থেকে গ্রেপ্তার করতে সমর্থ হয় পুলিশ।

সারিয়াকান্দি থানার এসআই তপন ঘোষ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, মঙ্গলবার রাতে গ্রেপ্তারের পরদিন বুধবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে ইয়াছিন আলীকে।