সাভারে ৮ম বার আত্মহত্যার চেষ্টা তরুণের, উদ্ধারের পর থানায়

232
সাভারে ৯৯৯ নম্বরে ফোন পেয়ে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করার সময় সায়েম হাসান রাফি নামের এক তরুণকে অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করেছে পুলিশ।
৯৯৯ নম্বরে ফোন পেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করার সময় এক তরুণকে উদ্ধার করেছে পুলিশ

ঢাকার অদূরে সাভারে ৯৯৯ নম্বরে ফোন পেয়ে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করার সময় সায়েম হাসান রাফি নামের এক তরুণকে অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করেছে পুলিশ। উদ্ধারের পর মায়ের গায়ে হাত তোলার অভিযোগ পেয়ে ওই তরুণকে আটক করে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ। তার বিরুদ্ধে মামলা দায়েরেরও প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে।

মঙ্গলবার, ২৯ মার্চ রাতে সাভার উপজেলার ছোট কালিয়াকৈর গ্রামে চাঞ্চল্যকর এই ঘটনা ঘটে। পরদিন বুধবার দুপুরে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে পুলিশ।

এবারই প্রথম নয়, সায়েম হাসান রাফি এর আগেও ৭ বার আত্মহত্যার চেষ্টা চালিয়েছে। প্রতিবারই বাবা-মা তাকে উদ্ধার করেছে। রাফির অত্যাচারে রীতিমতো তিতিবিরক্ত তার পরিবারের সদস্যরা।

আটককৃত রাফি এসএসসি পরীক্ষার্থী। সে টাকার জন্য গত বেশ কয়েকদিন ধরেই তার মাকে চাপ দিয়ে আসছিল। এমনকি টাকা না পেয়ে মায়ের গায়ে হাত তোলার মতো ঘটনাও ঘটায় সে।

সবশেষ গত মঙ্গলবার রাতে মায়ের কাছে টাকা চায় রাফি। কিন্তু টাকা না দেওয়ায় সে তার মাকে প্রচন্ড মারধর করে। এরপর নিজের ঘরে গিয়ে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা চালায়।

ঘটনা জানতে পেরে প্রতিবেশীরা ৯৯৯-এ ফোন দিয়ে পুলিশকে জানায়। খবর পেয়ে অত্যন্ত দ্রুততার সঙ্গে ঘটনাস্থলে গিয়ে রাফিকে উদ্ধার করে পুলিশ। এসময় রাফির মা পুলিশকে জানায়, ছেলে তার গায়ে হাত তুলেছে। মায়ের অভিযোগ পেয়ে তৎক্ষণাত রাফিকে আটক করে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ। এ বিষয়ে সাভার মডেল থানার এসআই আব্দুল কুদ্দুস বলেন, ওই তরুণের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।