লক্ষ্মীপুরে শিক্ষক নিয়োগে ভুয়া প্রশ্নপত্রে প্রতারণার ফাঁদ, আটক ১৩

110
লক্ষ্মীপুরে শিক্ষক নিয়োগে ভুয়া প্রশ্নপত্রে প্রতারণার ফাঁদ
লক্ষ্মীপুরে শিক্ষক নিয়োগে ভুয়া প্রশ্নপত্রে প্রতারণার ফাঁদ

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি : লক্ষ্মীপুরে প্রাথমিক সহকারি শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় ভুয়া প্রশ্নপত্র দিয়ে প্রতারণার ফাঁদ পেতে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) পুলিশের হাতে আটক হয়েছেন ১৩ জন। প্রতারকচক্রের ৩ সদস্যসহ ১৩ জন পরীক্ষার্থীকে পরীক্ষা শুরুর আগেই তাদের আটক করা হয়েছে।

২২ এপ্রিল, শুক্রবার দুপুরে নিজ কার্যালয়ে প্রেস ব্রিফিংয়ের আয়োজন করে এসব তথ্য জানান পুলিশ সুপার ড. এ এইচ এম কামরুজ্জামান। এর আগে রামগঞ্জ ও সদর উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়।

পুলিশ সুপার জানান, দেশব্যাপী প্রাথমিক সহকারি শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়ার অংশ বিশেষ লক্ষ্মীপুরে ২৩ টি কেন্দ্রে ১৩ হাজার ১০৯ জন পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নেন। এটাকে কেন্দ্র করে একটি চক্র রামগঞ্জ উপজেলার নন্দনপুর গ্রামের আমিররেন্নেছা ভবন থেকে প্রশ্নপত্র দেয়ার নামে বিভিন্ন পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে চেকের মাধ্যমে ৮/১০ লাখ টাকা, সনদপত্র হাতিয়ে নেয়ার গোপন সংবাদ পায় ডিবি পুলিশ। পরে অভিযানে নামে তারা।

সকালে পরীক্ষা শুরুর আগে ওই ভবন থেকে মাহমুদুল হোসাইন, তার স্ত্রী শারমীন আক্তার, সুমি আক্তার, মোরশেদা জান্নাত রেবু, সুরাইয়া আক্তার, তানিয়া বাসার, তাসনিম আক্তার ও সারমিন আক্তারসহ ৮ জনকে আটক করে পুলিশ।

এসময় তাদের কাছ থেকে উত্তরপত্র সম্বিলিত ভূয়া প্রশ্নপত্র, বিভিন্ন ব্যাংকের খালি চেকের পাতা, শিক্ষা সনদের মূলকপি ও ১২টি পরীক্ষার প্রবেশপত্র উদ্ধার করা হয়। পরে তাদের দেওয়া তথ্যমতে মন্জুর হোসেন, রহমত উল্লাহ, পারভেজ হোসেন, জহিরুল ইসলাম, জামাল উদ্দিন সবুজকে আটক করে।

পুলিশ সুপার আরোও বলেন, প্রতারক চক্রের আরো সদস্যদের খুঁজছে পুলিশ, আটককৃতদের বিরুদ্ধে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা নেয়াসহ প্রত্যেক অপরাধীকে আইনের আওতায় আনা হবে বলে জানান তিনি।

এসময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার পলাশ কান্তি নাথ, সহকারি পুলিশ সুপার মিমতানুর রহমান, ডিআই ওয়ান আজিজুর রহমান মিয়া।