যুব উদ্যেক্তা বৃদ্ধিতে আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সাথে মুক্ত আলোচনা

113

বাগেরহাট প্রতিনিধি: বাগেরহাটে যুব উদ্যেক্তা বৃদ্ধিকল্পে সেবাদানকারী ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সাথে মুক্ত আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এক্টিভিস্তা বাগেরহাটের নামের একটি তরুণ গ্রুপের আয়োজনে,  এ্যকশন এইড বাংলাদেশ  এর অর্থায়নে ও বাঁধন মানব উন্নয়ন সংস্থা এর বাস্তবায়নে মঙ্গলবার (১২ এপ্রিল) বিকেলে শহরের একটি রেস্টুরেন্টে এই সভা অনুষ্ঠিত হয়।

আলোচনা সভায় বাঁধন মানব উন্নয়ন সংস্থার নির্বাহী পরিচালক এএসএম মঞ্জুরুল হাসান মিলন এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাম্মদ মুছাব্বেরুল ইসলাম। এসময় অন্যান্যের মধ্যে ছিলেন জেলা মহিলা বিষয়ক অধিধপ্তরের উপ পরিচালক নাজমুন নাহার, শহর সমাজসেবা কর্মকর্তা নাজমুস সাকিব, উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা আজগর আলী, সোনালী ব্যাংক বাগেরহাট শাখার এজিএম বিকাশ চন্দ্র ব্যানার্জী, কৃষি ব্যাংকের সিআরএম এস এম কাইয়ুম, কর্মসংস্থান ব্যাংক এর ব্যবস্থাপক মুনিরুল ইসলাম শেখ, বাগেরহাট সদর উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রিজিয়া পারভীন, ষাটগম্বুজ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ আক্তারুজ্জান বাচ্চু, কাড়াপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মহিতুর রহমান পল্টনসহ এক্টিভিস্তা বাগেরহাট এর স্বেচ্ছাসেবক, বাঁধন এর কর্মকর্তা, সাংবাদিক, আর্থিক প্রতিষ্ঠানে বিড়ম্বনার স্বীকার ভুক্তভোগীরা উপস্থিত ছিলেন।
সভায় একাধিক ঝণ প্রত্যাশী যুব বিভিন্ন সময়ে ব্যাংকে যেয়ে বিড়ম্বনার কথা তুলে ধরেন।৮সদর উপজেলার কাড়াপাড়া ইউনিয়নের রাজিব সাহা নামের এক উদ্যেক্তা বলেন, জমির কাগজ পত্র সব ঠিক থাকা স্বত্তেও দুই বছর ধরে ব্যাংকের দ্বারে দ্বারে ঘুরেছি। সবাই প্রথমে আশ্বাস দেয় কিন্তু পরে আর দেয়না। আমরা চাই সহজ শর্তে যেন আমাদের ঝণ দেওয়া হয়।

ভুক্তভোগীদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে আর্থিক প্রতিষ্ঠান ও ব্যাংকের কর্মকর্তারা নিয়মের মধ্যে থেকে যুবদের জন্য সহজ শর্তে ঝণ প্রদানের আশ্বাস দেন।

সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাম্মদ মুছাব্বেরুল ইসলাম বলেন, যুব সমাজ রাষ্ট্র ও সমাজের প্রাণশক্তি। কিন্তু যুবশ্রেণীর একটা বড় অংশ আজ দারিদ্র্য ও বেকারত্ব জর্জরিত। এদেরকে দক্ষ মানবসম্পদে রূপান্তরিত করে দেশের উন্নয়নে কাজে লাগাতে হবে। কিন্তু অনেক সময়-ই দেখা যায় তরুণ উদ্যেক্তারা আর্থিক প্রতিষ্ঠানে যেয়ে বিড়ম্বনায় পড়েন। আইনের মধ্যে থেকেও যদি কোনো উদ্যেক্তা আর্থিক প্রতিষ্ঠানের প্রয়োজনীয় সুবিধা না পায় সেক্ষেত্রে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সহিযোগীতার আশ্বাস দেন এই কর্মকর্তা।