মুক্তিপণ নিতে এসে তিন অপহরণকারী গ্রেপ্তার

162

মহিনুল ইসলাম সুজন, নীলফামারী : এক কিশোরকে অপহরণ করে মুক্তিপণ আদায়ের চেষ্টার সময় র‌্যাব-১৩ নীলফামারী সিপিসি-২ এর সদস্যরা অভিযান চালিয়ে চক্রের তিন যুবককে গ্রেপ্তার করেছে। বৃহস্পতিবার(১৮ আগস্ট)দুপুরে তাদের আদালতে নিলে বিচারক তাদের কারাগারে প্রেরণ করেন।গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন-ওয়াহেদ আলীর ছেলে জীবন ইসলাম(১৮),রবিউল ইসলামের ছেলে ফিরোজ ইসলাম(১৯) ও মৃত,মনছুর আলীর ছেলে সোহেল রানা(২১)।তারা সবাই নীলফামারীর সৈয়দপুর শহরের নিয়ামতপুর বাসটার্মিনাল এলাকার বাসিন্দা।

জানা যায়,দিনাজপুর জেলার খানসামা উপজেলার দুবলিয়া এলাকার রঞ্জন চন্দ্র রায়ের ছেলে কিশোর তমাল চন্দ্র রায়(১৬)গত বুধবার সকাল দশটার দিকে সৈয়দপুর শহরে আসে।বাড়ি ফিরার পথে তাকে বাসটার্মিনালের খালেক পাম্প সংলগ্ন এলাকা থেকে ওই তিন যুবক তাকে অপহরণ করে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায়।পরে তমাল রায়ের বাবাকে ফোন করে মুক্তিপন হিসাবে ২০হাজার টাকা দাবি করলে তাৎক্ষনিক ভাবে তমাল রায়ের বাবা র‌্যাব ১৩ নীলফামারীকে বিষয়টি অবহিত করেন।এরপর কৌশল অবলম্বন করে তমাল রায়ের বাবা মুক্তিপণ্যের ২০ হাজার টাকা দিতে রাজি হন। অপহরণকারীদের দেয়া ঠিকানা অনুযায়ী বুধবার বিকেলে সৈয়দপুর-নীলফামারী বাইপাস সড়কের মদিনা জামিয়াতুল মাদরাসার সামনে র‌্যাবের সদস্যরা সাদা পোষাকে অবস্থান নেন।সেখানে তমালের বাবা মুক্তিপণের টাকা নিয়ে এলে অপহরণকারীরা সেই টাকা নিতে আসে।তখনি র‌্যাব তাদের গ্রেপ্তার ও অপহৃত তমাল রায়কে উদ্ধার করেন।এ অভিযানে নেতৃত্ব দেন র‌্যাব-১৩ নীলফামারী সিপিসি-২ এর  কমান্ডার স্কোয়াড্রন লিডার আব্দুর রাজ্জাক খান।সৈয়দপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি)সাইফুল ইসলাম জানান,র‌্যাব নীলফামারী বুধবার রাতে অপহরণকারীদের থানায় হস্তান্তর করেন। বৃহস্পতিবার গ্রেপ্তারকৃতদের আদালতে হাজির করলে বিচারক তাদের জেলা কারাগারে প্রেরণ করেন।