বিদ্যুতায়িত টেবিল ফ্যান ধরে নির্মাণ শ্রমিকের মৃত্যু

138
মির্জাগঞ্জে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে প্রাণ হারালেন নির্মাণ শ্রমিক
মির্জাগঞ্জে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে প্রাণ হারালেন নির্মাণ শ্রমিক

মির্জাগঞ্জ (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি : পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে জুয়েল ফকির (৩৫) নামের একজন ইমারত নির্মাণ শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে।  

সোমবার (৪ জুলাই) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে উপজেলার মির্জাগঞ্জ ইউনিয়নের উত্তর মির্জাগঞ্জ গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত যুবক ওই গ্রামের মোহাম্মদ ফকিরের ছেলে। তিনি দুই সন্তানের জনক।

প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয়রা জানান, নির্মাণ শ্রমিক লতিফ হাওলাদার, স্বপন মল্লিক ও জুয়েল ফকির তিনজনে মিলে উত্তর মির্জাগঞ্জ গ্রামের ফরিদ উদ্দিন মাস্টারের (ফরিদ বিএসসি) নির্মাণাধীন বিল্ডিংয়ের ফ্লোর পাকা করার কাজে নিয়োজিত ছিলেন। তারা বারান্দার কাজ শেষ করে খাবার ঘরের ফ্লোর ঢালাইয়ের কাজ করছিলেন।

এক পর্যায়ে লতিফ হাওলাদার ও স্বপন মল্লিক বিল্ডিংয়ের বাহিরে ইট, বালু ও সিমেন্ট মেশানোর কাজ করতে যায় আর জুয়েল বারান্দার পাকা অংশ (ঢালাই) দ্রুত শুকানোর জন্য ঘরের খাটের উপর রাখা চলন্ত টেবিল ফ্যান ধরে সেখানে নিয়ে যেতে চাইলে তিনি বিদ্যুতায়িত হন।

এসময় ঘরের মালিক সেখানে প্রবেশ করলে জুয়েলকে ফ্যান ধরে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখে বুঝতে পারেন, সে বিদ্যুতায়িত হয়েছে। পরে অন্য শ্রমিকদের ডেকে বাঁশ দিয়ে ধাক্কা দিয়ে তাকে সরিয়ে ফেলেন এবং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান।

নিহতের সাথে থাকা নির্মাণ শ্রমিক মোঃ স্বপন মল্লিক বলেন, আমরা একসাথে কাজ করছিলাম। এসময় ফ্লোরের ঢালাই দ্রুত শুকানোর জন্য জুয়েল ফকির একটি চলন্ত টেবিল ফ্যান সেট করছিল। তখন যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে ফ্যানটি বিদ্যুতায়িত হয়ে যাওয়ায় জুয়েলও বিদ্যুৎপৃষ্ট হন। পরে আমরা তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাই।

ঘর মালিক ফরিদ আহমেদ বলেন, আমি তাকে ফ্যান ধরে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখে পাশে থাকা শ্রমিকদের ডাক দেই। পরে তাকে বাঁশ দিয়ে ধাক্কা দিয়ে সরিয়ে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাই। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত্যু ঘোষণা করেন।

মির্জাগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ আনোয়ার হোসেন তালুকদার বলেন, এ বিষয়ে একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। কারো কোনো অভিযোগ না থাকায় লাশ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।