মারধরের পর আটকে রাখা স্ত্রীকে উদ্ধার করলো গ্রাম পুলিশ

117

নুরনবী সরকার, লালমনিরহাট প্রতিনিধি : লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় স্ত্রীকে মারধরের পর আটকিয়ে রাখার অভিযোগ উঠেছে রুবেল মিয়া নামে এক কাপড় ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে। পরে গ্রাম পুলিশের সহযোগিতায় ওই গৃহবুধকে উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় হাতীবান্ধায় থানা একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন জুই বেগম নামে ওই গৃহবধু।

প্রাপ্ত অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, ওই উপজেলার বড়খাতা ইউনিয়নের আব্দুর জলিলের মেয়ে জুই বেগমের সাথে পার্শ্ববর্তী পাইকারটারী এলাকার আতোয়ার রহমানের পুত্র রুবেল মিয়ার বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে রুবেল মিয়া তার স্ত্রী জুই বেগমকে নানা কারনে নির্যাতন করেন এমন অভিযোগ জুই বেগমের পরিবারের। গত ১৭ আগষ্ট রাতে রুবেল মিয়া তার স্ত্রী জুই বেগমকে মারধর করে ঘরে আটকিয়ে রাখে এমন খবর পেয়ে জুইয়ের বাবা আব্দুর জলিল গ্রাম পুলিশের সহযোগিতায় মেয়েকে উদ্ধার করেন। পরে তাকে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। এ ঘটনায় জুই বেগম বাদী হয়ে হাতীবান্ধা থানার একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

তবে এ বিষয়ে রুবেল মিয়া বলেন, পারিবারিক ছোটখাটো বিষয় নিয়ে আমার শ্বশুর বাড়ির লোকজন বাড়াবাড়ি করছেন। আমি সংসার করতে চাই কিন্তু আমার স্ত্রী এখন আর সংসার করবেন না। যে কারনে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ দায়ের করেছেন।

এ বিষয়ে হাতীবান্ধা থার ওসি শাহা আলম জানান, অভিযোগটি তদন্ত চলছে। তদন্ত শেষে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।