মায়ের পরকীয়ার বলি মেয়ে

151
মায়ের পরকীয়ার বলি মেয়ে
মায়ের পরকীয়ার বলি মেয়ে

বরিশাল সদর উপজেলার ছোট রাজাপুর গ্রামে পরকীয় প্রেমিকের সাথে মায়ের সম্পর্ক দেখে ফেলায় তন্নী আক্তার নামে (১৩) এক কিশোরীকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। হত্যার পর তার লাশের গলায় ফাঁস লাগিয়ে ঝুলিয়ে রেখে আত্মহত্যার প্রচার চালায় ।

এ ঘটনায় দায়ের হওয়া অপমৃত্যু মামলার তদন্তে গিয়ে আসল রহস্য উদঘাটন করে পুলিশ। এ ঘটনায় অভিযুক্ত মা লিপি বেগমকে ইতোমধ্যে গ্রেফতার করা হয়েছে। তার পরকীয়া প্রেমিকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার কথা বলেন পুলিশ।

পুলিশ ও স্বজন জানায়, গত ২৭ মে দুপুরে বরিশাল সদর উপজেলার শায়েস্তাবাদ এলাকার গৃহবধূ তার নিজ ঘরে স্বামী ও সন্তানের অনুপস্থিতিতে পরকীয়া প্রেমিক কবির খানের সাথে অনৈতিক কর্মকাণ্ডে লিপ্ত হয়। হঠাৎ তন্নী ঘরে ফিরে তার মাকে পরকীয় প্রেমিকের সাথে অসামাজিক কর্মকাণ্ডে লিপ্ত অবস্থায় দেখে।

এ সময় সে বিষয়টি তার বাবার কাছে বলে দেয়ার হুমকি দেয়। তাৎক্ষনিক মা লিপি ও তার পরকীয়া প্রেমিক কবির মিলে শ্বাসরোধ করে তাকে হত্যা করে। পরে নিজিকে বাঁচতে লিপি ও কবির তন্নীর গলায় ওড়না পেঁচিয়ে তাকে ঘরের আড়ার সাথে ঝুলিয়ে রাখার পর সে আত্মহত্যা করেছে বলে মানুষকে জানায়। এ ঘটনায় ওইদিনই বরিশাল মেট্রোপলিটনের কাউনিয়া থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করেন তন্নীর বাবা সোহরাব হাওলাদার। তন্নীর কথিত আত্মহত্যার ঘটনা নিয়ে তার বাবা সোহবার হাওলাদার পুলিশের কাছে সন্দেহ প্রকাশ করেন।

এরপরই ওই মামলার তদন্তে গিয়ে প্রকৃত ঘটনা উদঘাটন করে তদন্ত কর্মকর্তা কাউনিয়া থানার উপ-পরিদর্শক হুমায়ুন কবির। স্থানীয়দের সাক্ষ্য প্রমানের ভিত্তিতে মেয়ে তন্নী হত্যায় জড়িত থাকার অভিযোগে আজ শনিবার সকালে শায়েস্তাবাদের স্বামীর বাড়ি থেকে লিপি বেগমকে গ্রেফতার করেন পুলিশ। তার পরকীয়া প্রেমিক কবির খানকে গ্রেফতারের জন্য অভিযান অব্যাহত রেখেছেন পুলিশ।

বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশ উপ-কমিশনার (উত্তর) মো. জাকির হোসেন মজুমদার জানায়, অপমৃত্যু মামলা তদন্তে গিয়ে তন্নী হত্যার আসল রহস্য উদঘাটন করা হয়েছে। পরকীয়া প্রেমিকের সাথে মায়ের অনৈতিক সম্পর্ক দেখে ফেলায় তন্নীকে শ্বাসরোধ করে হত্যার পর তার লাশ ঝুলিয়ে রেখে আত্মহত্যা বলে প্রচার চালায় তারা। এ ঘটনায় অভিযুক্ত মাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তার পরকীয়া প্রেমিককে গ্রেফতারের চেস্টা চলছে। এ ঘটনায় যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার কথা বলেন তিনি।