মদনিষিদ্ধ রাজ্যে বিষাক্ত মদপানে ৪২ জনের মৃত্যু (ভিডিও)

89

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নিজ রাজ্য গুজরাট। সেখানে মদপান ও মদ বিক্রি আইনগতভাবে নিষিদ্ধ। মদনিষিদ্ধ সেই রাজ্যেই মদ নিয়ে হৃদয়বিদারক এক ঘটনা ঘটে গেছে। বিষাক্ত মদপান করে অন্তত ৪২ জনের মৃত্যু হয়েছে রাজ্যটিতে।

এছাড়া বিষাক্ত মদপান করে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় প্রায় ১০০ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। হতাহতদের বেশিরভাগই হতদরিদ্র শ্রমিক এবং দিনমজুর।

ঘটনার পর গুজরাট রাজ্যের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হার্শ সাংবি এক বিবৃতিতে বলেন, তদন্ত প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, তারা (নিহতরা) বিষাক্ত মদপান করেছিলেন। তিনি আরও বলেন, এই মদপানের ঘটনায় চিকিৎসার জন্য ৯৭ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের মধ্যে দুজনের অবস্থা আশংকাজনক।

বিষাক্ত মদপানে এত মানুষের মৃত্যুর ঘটনার পর মদ আমদানি, রপ্তানি ও প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে অভিযান শুরু হয়েছে গুজরাট রাজ্যজুড়ে। গত সপ্তাহের গোড়ার দিকে গুজরাট রাজ্যের অনেক গ্রামে বিক্রি হওয়া বিষাক্ত মদপান করার পর বহু মানুষ অসুস্থ হয়ে পড়েন। ভারতের সিনিয়র পুলিশ কর্মকর্তা অশোক ইয়াদেব জানান, ওই মদপানের পর থেকে কয়েকদিনে এখন পর্যন্ত বোতাদ জেলায় ৩১ জনের প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে। পুলিশের আরেক সিনিয়র কর্মকর্তা ভি চন্দ্রশেখর জানান, গুজরাটের পার্শ্ববর্তী আহমেদাবাদ নগরীতে আরও ১১ জন মারা গেছেন বিষাক্ত মদ খেয়ে।

উল্লেখ্য, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নিজ রাজ্য গুজরাট। সেখানে মদপান ও মদ বিক্রি আইনগতভাবে নিষিদ্ধ। তারপরও রাজ্যটিতে অবৈধভাবে মদের উৎপাদন হয়, পানও করেন বহু মানুষ। এই ঘটনায় মোদী সরকারের কঠোর সমালোচনা করেছে বিরোধী শিবির। গুজরাট রাজ্যের কংগ্রেস দলীয় বিধায়ক অমিত চাভদার ভাষ্য অনুযায়ী, গুজরাট রাজ্যে বিজেপি নেতাদের প্রত্যক্ষ মদদে মদের অবৈধ উৎপাদন, বিতরণ ও বিক্রয় চলছে। অপরাধী ও পুলিশের যোগসাজশে এমনটা ঘটছে। মদের অবৈধ উৎপাদন, বিতরণ ও বিক্রয়ের সঙ্গে জড়িতদের কাছ থেকে নিয়মিত মাসোহারা নেয় পুলিশ।