ভোলায় বিএনপি’র সকাল সন্ধ্যা হরতাল

110
নূরে আলমের মৃত্যুর বিষয় নিশ্চিত করেন জেলা বিএনপি সভাপতি গোলাম নবী আলমগীর। মত্যুর ঘটনায় বৃহস্পতিবার ভোলা জেলা সদরে সকাল সন্ধ্যা হরতাল ডেকেছে জেলা বিএনপি। নূরে আলমের মত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে শহরে বিভিন্ন পয়েন্ট থেকে খন্ড খন্ড বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। মিছিল শেষে হরতালের ঘোষণা দেন জেলা বিএনপি সভাপতি গোলাম নবী আলমগীর।
নূরে আলমের মৃত্যুর বিষয় নিশ্চিত করেন জেলা বিএনপি সভাপতি গোলাম নবী আলমগীর। মত্যুর ঘটনায় বৃহস্পতিবার ভোলা জেলা সদরে সকাল সন্ধ্যা হরতাল ডেকেছে জেলা বিএনপি। নূরে আলমের মত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে শহরে বিভিন্ন পয়েন্ট থেকে খন্ড খন্ড বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। মিছিল শেষে হরতালের ঘোষণা দেন জেলা বিএনপি সভাপতি গোলাম নবী আলমগীর।

পুষ্পেন্দু মজুমদার, ভোলা থেকে : ভোলায় বিএনপি ও পুলিশের সংঘর্ষে আহত জেলা ছাত্রদল সভাপতি নূরে আলম তিন দিন লাইফ সাপোর্টে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় বুধবার বেলা ৩টা ১০ মিনেটে ঢাকার একটি বেসরকারী হাসপাতালে মারা গেছেন। গত রোববারের ওই সংঘর্ষে এর আগে মারা যান দক্ষিণ দিঘলদী ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেক দলের নেতা আব্দুর রহিম। আহত হন অর্ধশতাধিক।

নূরে আলমের মৃত্যুর বিষয় নিশ্চিত করেন জেলা বিএনপি সভাপতি গোলাম নবী আলমগীর। মত্যুর ঘটনায় বৃহস্পতিবার ভোলা জেলা সদরে সকাল সন্ধ্যা হরতাল ডেকেছে জেলা বিএনপি। নূরে আলমের মত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে শহরে বিভিন্ন পয়েন্ট থেকে খন্ড খন্ড বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। মিছিল শেষে হরতালের ঘোষণা দেন জেলা বিএনপি সভাপতি গোলাম নবী আলমগীর।

গোলাম নবী আলমগীর জানান, মাথায় ও বুকে গুলিবিদ্ধ আহত নূরে আলমকে প্রথমে বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ও পরে ঢাকায় একটি বেসরকারি হাসাপাতালে আইসিইউতে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছিল। এদিকে জেলা ছাত্রদল সভাপতি নূরে আলম ও স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতা আব্দুর রহিমের এমন মৃত্যুর বিষয় মেনে নিতে পারছেন না বিএনপি নেতারা। এমন ঘটনায় পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেয়াসহ ঘটনার তদন্তে কেন্দ্রীয় বিএনপির ১০ নেতা রাতে ভোলায় আসেন। তারা বৃহস্পতিবার সকাল থেকে দলীয় অফিস এলাকাসহ নিহতদের বাড়ি যাবেন বলে জানান বিএনপি সভাপতি। নূরে আলমের সুস্থতা কামনায় মঙ্গলবার বিএনপি নেতারা দোয়া অনুষ্ঠান করেন।

এদিকে নূরে আলমের ভাই ওয়াদুল হক বালু মোল্লা বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবুল কাশেম জানান, এমন মৃত্যু তারা মানতে পারছেন না। ওর ৫ বছরের শিশু কন্যা ও স্ত্রীর ভবিষ্যত কি হবে। এদিকে আইসিইউতে গত তিনদিন জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে থাকা নূরে আলমের ফিরে আসা কামনা করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সর্বশ্রেনির মানুষ পোষ্ট দেন। সকল দোয়া ও প্রার্থনা উপেক্ষা করে বুধবার মৃত্যুর কলে ঢলে পড়েন নূরে আলম।

এই মৃত্যু ও হামলার ঘটনায় বিএনপি’র তরফ থেকে মামলা করার প্রস্তুতি রয়েছে বলে জানান বিএনপি নেতারা। ভোলার পুলিশ সুপার মো. সাইফুল ইসলাম জানান, ছাত্রদল সভাপতির মৃত্যুও খবর পেয়ে তারাও নিশ্চিত হতে ঢাকায় যোগাযোগ করেন। নিহত নূরে আলমের ময়না তদন্ত ঢাকায় হবে বলেও জানান পুলিশ সুপার।

রোববার প্রথমে শান্তিপূর্ন সমাবেশ শেষে শহরে বিক্ষোভ মিছিল বের করার সময় পুলিশ নিষেধ করে। পুলিশের বাধা উপেক্ষা করে বিএনপি কর্মীরা রাস্তায় নামলে পুলিশ বেরিকেড দেয়। এ সময় পুলিশের উপর ইটপাটকেল নিক্ষপ শুরু করে বিএনপি কর্মীরা। বাধ্য হয়ে পুলিশও লাঠিচার্জ, টিয়ারসেল নিক্ষেপ ও সর্টগানের গুলি বর্ষন করে। উভয়মুখি সংঘর্ষে আব্দুর রহিম ও নূরে আলমসহ ১০ পুলিশ সদস্য আহত হন।