বীরগঞ্জে পুষ্টিকর ফুল গ্রেইন চাল উৎপাদন প্রক্রিয়া বিষয়ক প্রশিক্ষণ

99

সোমবার সুজালপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, বীরগঞ্জ, দিনাজপুর-এ গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের বিশেষায়িত প্রতিষ্ঠান পল্লী কর্ম-সহায়ক ফাউন্ডেশন (পিকেএসএফ) এর সহায়তায় এবং বিশ্ব ব্যাংক এর অর্থায়নে বাস্তবায়ন সহযোগী সংস্থা ইকো-সোশ্যাল ডেভলপমেন্ট অর্গানাইজেশন (ইএসডিও) কর্তৃক আয়োজিত সাসটেইনেবল এন্টারপ্রাইজ প্রজেক্ট (এসইপি) এর উপ প্রকল্পঃ “হাস্কিং মিলের পরিবেশের দূষণ কমানোর মাধ্যমে সাধারণ মানুষের প্রচলিত খাবার হিসেবে ফুল গ্রেইন চাল প্রক্রিয়াজাতকরণ” ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের “ফুল গ্রেইন চাল প্রক্রিয়াজাতকরণ বিষয়ক প্রশিক্ষণ“ দিন ব্যাপি অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ফিরোজ আহম্মদ মোস্তফা উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক, বীরগঞ্জ, দিনাজপুর, প্রজেক্ট ম্যানেজার (ইএসডিও-এসইপি) মোঃ আবু বককর সিদ্দিক (আবু), বাবুল সরকার (জোনাল ম্যানেজার, ভারপ্রাপ্ত), মোঃ কামাল হোসেন, শাখা ব্যবস্থাপক, বীরগঞ্জ এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন এম এ কাহার বকুল, এন্টারপ্রাইজ ডেভলপমেন্ট অফিসার, ইএসডিও-এসইপি, দিনাজপুর।

প্রজেক্ট ম্যানেজার মোঃ আবু বককর সিদ্দিক (আবু) উপস্থিত সবাইকে শুভেচ্ছা জানিয়ে সবার সাথে কুশলাদি বিনিময় করে সাসটেইনেবল এন্টারপ্রাইজ প্রজেক্ট সম্পর্কে বিস্তারিত ধারণা দেন। এই প্রজেক্টের সদস্যদের মাধ্যমে কর্মপরিবেশ ঠিক রেখে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করা ও পরিবেশ চর্চা গুলো নিশ্চিত করা। সবাইকে পরিবেশ চর্চা করতে হবে এবং সুন্দর পরিবেশে নিরাপদ ও স্বাস্থ্যসম্মত উপায়ে পুষ্টিকর ফুল গ্রেইন চাল উৎপাদন করতে হবে।

দিনাজপুর মাইক্রো-ফিন্যান্স প্রোগ্রামের জোনাল ম্যানেজার উপস্থিত সবাইকে পরিবেশ চর্চার উপর গুরুত্ব দিয়ে পুষ্টিকর ফুল গ্রেইন চাল উৎপাদন করার পরামর্শ দেন ও শ্রমিকদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত করে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করার আহ্ববান জানান।

অতিথি ফিরোজ আহম্মদ মোস্তফা উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক, বীরগঞ্জ, দিনাজপুর বলেন, বাজরে চকচকে চালের সয়লাব হওয়ায় সাধারণ মানুষ তা কিনতে আগ্রহী হচ্ছে। ফুল গ্রেইন চাল হাস্কিং মিলে প্রক্রিয়াজাতকৃত ও স্বাস্থ্য সম্মত। হাস্কিং মিলের চাল নিরাপদ উপায়ে কিভাবে উৎপাদন ও প্রক্রিয়াজাতকরণ করতে হবে তিনি এই বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন। এছাড়াও প্রকৃতিকে ফিরিয়ে আনার জন্য জমিতে ছাইয়ের পরিমাণ বাড়াতে হবে তাহলে আমরা নিরাপদ খাবার পাবো কেননা বেশি পরিমানে রাসায়নিক স্যার ব্যবহারের ফলে খাবারগুলো অনিরাপদ হচ্ছে। সর্বোপরি তিনি ইএসডিও কে এই প্রকল্প গ্রহণের ধন্যবাদ জানান এবং সর্বাত্মক সহযোগীতার আশ্বাস প্রদান করেন। তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন এই প্রকল্পের মাধ্যমে সাধারণ মানুষ ফুল গ্রেইন চাল খাওয়া এবং পরিবেশ চর্চা বাস্তবায়নের মাধ্যমে স্বাস্থ্যগত ভাবে উপকৃত হবে।

পরিশেষে তিনি উপস্থিত সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে প্রশিক্ষণের সমাপ্তি ঘোষণা করেন।