বিবস্ত্র স্ত্রীকে ভিডিও কলে অন্যের সঙ্গে কথা বলতে দেখে যুবকের আত্মহত্যা

271
পাঁচ বছরের ভালোবাসার সম্পর্ক। এরপর বিয়ে ও ১৬ মাসের সংসার। সেই স্ত্রী যখন পরকীয়ায় লিপ্ত হয়ে বিবস্ত্র অবস্থায় ভিডিও কলে কথা বলেন আর সেই দৃশ্য দেখে ফেলেন স্বামী তখন সেই স্বামীর ভেতরটা কীভাবে দুমড়ে-মুচড়ে যেতে পারে তা সহজেই অনুমেয়। সম্প্রতি ঠিক এমনটাই ঘটেছে কুমিল্লার বরুড়া উপজেলার আদ্রা ইউনিয়নের রাজাপুর গ্রামে।
পাঁচ বছরের ভালোবাসার সম্পর্ক। এরপর বিয়ে ও ১৬ মাসের সংসার। সেই স্ত্রী যখন পরকীয়ায় লিপ্ত হয়ে বিবস্ত্র অবস্থায় ভিডিও কলে কথা বলেন আর সেই দৃশ্য দেখে ফেলেন স্বামী তখন সেই স্বামীর ভেতরটা কীভাবে দুমড়ে-মুচড়ে যেতে পারে তা সহজেই অনুমেয়। সম্প্রতি ঠিক এমনটাই ঘটেছে কুমিল্লার বরুড়া উপজেলার আদ্রা ইউনিয়নের রাজাপুর গ্রামে।

পাঁচ বছরের ভালোবাসার সম্পর্ক। এরপর বিয়ে ও ১৬ মাসের সংসার। সেই স্ত্রী যখন পরকীয়ায় লিপ্ত হয়ে বিবস্ত্র অবস্থায় ভিডিও কলে পরকীয়া প্রেমিকের সঙ্গে কথা বলেন আর সেই দৃশ্য দেখে ফেলেন স্বামী তখন সেই স্বামীর ভেতরটা কীভাবে দুমড়ে-মুচড়ে যেতে পারে তা সহজেই অনুমেয়। সম্প্রতি ঠিক এমনটাই ঘটেছে কুমিল্লার বরুড়া উপজেলার আদ্রা ইউনিয়নের রাজাপুর গ্রামে।

পাঁচ বছর আগে ২০২১ সালে ভালোবাসার মাসে মানে ফেব্রুয়ারিতে দীর্ঘদিনের ভালোবাসার মানুষ লিজা আক্তারকে বিয়ে করে আজীবনের সঙ্গী হিসেবে বরণ করে নিয়েছিলেন কাউছার আলম নামের এক যুবক। লিজা আর কাউছার একই গ্রামের বাসিন্দা। সম্প্রতি স্ত্রীর প্রতারণার দৃশ্য চোখের সামনে দেখে সহ্য করতে না পেরে ক্ষোভে, দুঃখে, অপমানে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন তরতাজা যুবক কাউছার।

পরকীয়ার কারণে মর্মান্তিক এই ঘটনা ঘটেছে কুমিল্লার বরুড়া উপজেলার আদ্রা ইউনিয়নের রাজাপুর গ্রামে। আত্মহত্যার আগে একটি ডায়েরিতে আত্মহত্যার জন্য স্ত্রীর পরকীয়া প্রেমকে দায়ী করে গেছেন কাউছার। তার লাশের পাশেই পাওয়া গেছে সেই ডায়েরি।

কাউছার তার ডায়েরিতে লিখেছেন, রবিউল ভাইয়ের সঙ্গে কথা বলি। কথা বলা শেষ হলে আমি ঘরে আসি। তখন দেখি হাসাহাসি করে লিজা কোনো এক ছেলের সঙ্গে ভিডিও কলে কথা বলছে। তাকে সবকিছু খুলে দেখাচ্ছে।

কাউছার আরও লিখেছেন, আমি এখন কী করবো! আমার মাথায় কিছু কাজ করে না। কাকে কী বোঝাবো? আমি এসব দেখার পর মরে যেতে চাচ্ছি। এরপরও নিজেকে বুঝাতে পারিনি। কারণ আমি নিজের চোখে দেখেছি (স্ত্রীর প্রতারণা)। আমি মান পাই নাই। জীবনের গল্প শেষ করে দিলাম। কারণ হলো, যাকে ভালোবেসেছি সে আমার সঙ্গে এমন (প্রতারণা) করলো।

রাজাপুর গ্রামের বাসিন্দা কাউছার আলমের বাবা আবুল কাশেম জানান, বিয়ের কিছুদিন পরই বাবার বাড়ি চলে যায় লিজা। স্ত্রী মাসের পর মাস ধরে বাবার বাড়িতে থাকায় দুশ্চিন্তা ভর করে কাওছারের ওপর। সম্প্রতি সে স্ত্রীকে দেখতে শ্বশুরবাড়ি যায়। সেখানে রাত দেড়টার দিকে স্ত্রীকে ভিডিও কলে অন্য কারও সঙ্গে কথা বলতে দেখে কাউছার। সেই দৃশ্য সে সহ্য করতে পারেনি। বাড়ি ফিরে আত্মহত্যা করেছে। মৃত্যুর আগে ডায়েরিতে স্ত্রীর বিরুদ্ধে অভিযোগ করে গেছে সে।

এ বিষয়ে বরুড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইকবাল বাহার মজুমদার জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে কাউছার আলমের মুতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এরপর ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়। মৃতদেহের পাশেই একটি ডায়েরি পাওয়া গেছে।

ওসি ইকবাল বাহার মজুমদার আরও জানান, ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পাওয়ার পর মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে। অভিযোগ পাওয়ার পর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান তিনি।