বিদ্যুৎ ও জ্বালানির সাশ্রয় সময়ের দাবি : জ্বালানি উপদেষ্টা

96

প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিষয়ক উপদেষ্টা ড. তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী, বীর বিক্রম বলেছেন, সমাজের সর্বস্তরে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সাশ্রয় সময়ের দাবি। সাশ্রয় কার্যক্রম নিজ আবাসস্থল হতেই শুরু হওয়া বাঞ্ছনীয়। অবৈধ গ্যাস বা বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন কার্যক্রম বাড়িয়ে বকেয়া বিল আদায় জোরদার করতে হবে।

জ্বালানি উপদেষ্টা আজ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে সারাদেশের বিদ্যুৎ ও গ্যাস পরিস্থিতি নিয়ে পর্যালোচনা সভায় সভাপতিত্বকালে এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, জ্বালানি সংকট বৈশ্বিক। জাপান, অষ্ট্রেলিয়াসহ উন্নত দেশ লোডশেড বা সাশ্রয়ী উদ্যোগ নিয়েছে। একটু সাশ্রয়ী হয়ে চললেই এই সংকট আমরা ভালোভাবে পার করতে পারবো। উপদেষ্টা এসময় অ্যাপস এর মাধ্যমে লোডশেড সম্পর্কে তথ্য দেয়া যায় কী না, তা খতিয়ে দেখার জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেন।

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ পর্যালোচনা সভায় ভার্চুয়ালি সংযুক্ত থেকে বলেছেন, অক্টোবর মাস নাগাদ পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতে পারে। গ্যাস অনুসন্ধান কার্যক্রম বাড়ানো হয়েছে। ওয়ার্কওভার কার্যক্রম আরো জোরদার করতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিয়ে বলেন, ভোলার গ্যাস দ্রুত আনার উদ্যোগ নিতে হবে। সারাবিশ্ব নানারকম কৃচ্ছ্রতা সাধনের উদ্যোগ নিয়েছে। আমাদেরকে গ্যাস ও বিদ্যুৎ ব্যবহারে সাশ্রয়ী হতে হবে। লোডশেড করতে হলে অবশ্যই শিডিউল করে গ্রাহকদের জানাতে হবে। এ সময় তিনি সম্মানিত গ্রাহকদের সহযোগিতা কামনা করেন।

সভায় পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যান নাজমুল আহসান প্রাকৃতিক গ্যাসের চাহিদা ও সরবারাহ এবং ভবিষ্যৎ পূর্বাভাস নিয়ে আলোচনা করেন। বাংলাদেশে বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান মোঃ মাহবুবুর রহমান বিদ্যুতের চাহিদা ও সরবরাহ বিষয়টি সভায় তুলে ধরেন। লোডশেড করা হবে বা করা উচিত বিষয়টিও ব্যাখ্যা করেন। বিপিসির চেয়ারম্যান এ বি এম আজাদ এনডিসি, তেলের সরবরাহ ও চাহিদা নিয়ে আলোচনা করেন।

সভায় এসির তাপমাত্রা ২৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস বা তার উপর রাখা, শপিংমল ৭টা বা ৮টার মধ্যে বন্ধ, ৭টার মধ্যে বিয়েসহ সকল সামাজিক অনুষ্ঠান সম্পন্ন, অহেতুক আলোকসজ্জা না করা, অফিস সময় হ্রাস, ঘরে বসে অফিস ইত্যাদি বিষয় আলোচনা করা হয়।

সভায় জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের সিনিয়র সচিব মোঃ মাহবুব হোসেন, বিদ্যুৎ সচিব মোঃ হাবিবুর রহমান, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব (সমন্বয় ও সংস্কার) মোঃ সামসুল আরেফিন, অর্থ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (বাজেট) সিরাজুন নূর চৌধুরী, পাওয়ার সেলের মহাপরিচালক মোহাম্মদ হোসাইনসহ বিদ্যুৎ বিভাগ ও জ্বালানি বিভাগের দপ্তর প্রধানগণ উপস্থিত ছিলেন।