বিদেশি ফুল, ফল, ফার্নিচার, প্রসাধনীসহ ১৩৫ পণ্যের আমদানি শুল্ক বৃদ্ধি

99
বিদেশি ফুল, ফল, ফার্নিচার, প্রসাধনীসহ ১৩৫ পণ্যের আমদানি শুল্ক বৃদ্ধি
বিদেশি ফুল, ফল, ফার্নিচার, প্রসাধনীসহ ১৩৫ পণ্যের আমদানি শুল্ক বৃদ্ধি

কোভিড-১৯ পরবর্তী অর্থনীতি পুনর্গঠন, বিলাসবহুল পণ্যের ওপর নির্ভরশীলতা ও আমদানি হ্রাসকরণ এবং বৈদেশিক মুদ্রা সাশ্রয়ের লক্ষ্যে বিদেশি ফল, বিদেশি ফুল, ফার্নিচার ও প্রসাধনী জাতীয় প্রায় ১৩৫টি এইচএস কোডভুক্ত পণ্যের ওপর আমদানি পর্যায়ে বিদ্যমান শুন্য ও তিন শতাংশের পরিবর্তে ২০ শতাংশ নিয়ন্ত্রণমূলক শুল্ক আরোপ করা হয়েছে। নতুন নির্ধারিত এই আমদানি শুল্ক ২৩ মে থেকে কার্যকর হয়েছে।

বাংলাদেশ ফুল ও ফল চাষে যথেষ্ট সমৃদ্ধশালী। উক্ত নিয়ন্ত্রণমূলক শুল্ক আরোপের ফলে দেশীয় ফুল ও ফল চাষিরা ন্যায্যমূল্য পাবে এবং ফুল ও ফল চাষে উৎসাহিত হবে। এতে করে দেশের প্রান্তিক চাষিরা লাভবান হবে এবং আমদানি নির্ভরতা কমবে। বর্তমানে দেশে উৎপাদিত ফার্নিচার ও কসমেটিকস যথেষ্ট মানসম্পন্ন এবং দেশের প্রয়োজনীয় চাহিদা মেটাতে সক্ষম।

ফার্নিচার ও কসমেটিকসে নিয়ন্ত্রণমূলক শুল্ক আরোপের ফলে বিদেশি পণ্যের সাথে প্রতিযোগিতার মাধ্যমে দেশীয় শিল্প বিকশিত হবে। এছাড়াও এ ধরনের পণ্যের অপ্রয়োজনীয় আমদানি নিরুৎসাহিতকরণের মাধ্যমে মূল্যবান বৈদেশিক মুদ্রা সাশ্রয় এবং সরকারের রাজস্ব আহরণে ইতিবাচক ভূমিকা পালন করবে।