বার্জারের ‘স্মৃতির আঙিনা’য় জয়া আহসান

115

‘বার্জার লাক্সারি সিল্ক ইমালশন স্মৃতির আঙিনা’ ক্যাম্পেইনে অংশ নিলেন দুই বাংলার জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা জয়া আহসান।

বার্জারের ‘স্মৃতির আঙিনা’ ক্যাম্পেইনে অংশগ্রহণকারীরা দেয়ালে তাদের স্মরণীয় সব মুহূর্তগুলো তুলে ধরেছিলেন, তারই অংশ হিসেবে দেশের শীর্ষস্থানীয় পেইন্ট সল্যুশন ব্র্যান্ড বার্জার পেইন্টস বাংলাদেশ লিমিটেড (বিপিবিএল) ক্যাম্পেইনের সেরা ২০ অংশগ্রহণকারীর জন্য ৮ আগস্ট রাজধানীর রেনেসাঁ ঢাকা গুলশান হোটেলে এ অনুষ্ঠান আয়োজন করে। জমকালো ওই অনুষ্ঠানে সেরা ২০ অংশগ্রহণকারীর সাথে গল্পে মেতে ওঠেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী জয়া আহসান। এছাড়া অনুষ্ঠানে অন্যতম আকর্ষণ ছিল জনপ্রিয় সঙ্গীত শিল্পী রিতু রাজের মনোমুগ্ধকর সঙ্গীত পরিবেশনা।

অনুষ্ঠানে ক্যাম্পেইনের অংশগ্রহণকারীরা এবং জয়া আহসানসহ উপস্থিত ছিলেন বার্জারের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রূপালী চৌধুরী, প্রতিষ্ঠানটির সেলস অ্যান্ড মার্কেটিং -এর সিনিয়র জেনারেল ম্যানেজার মো. মোহসিন হাবিব চৌধুরী, সেলস -এর জেনারেল ম্যানেজার একেএম সাদেক নাওয়াজ, হেড অব ব্র্যান্ডস সেঁজুতি সালেক সেতু, মার্কেটিং এর ক্যাটাগরি ম্যানেজার সাইদ শরীফ রাসেল ও লাক্সারি সিল্কের ব্র্যান্ড ম্যানেজার আমরিনা তাসনিম রোশনি।

বাড়ির দেয়াল সকল স্মরণীয় মুহূর্তের সাক্ষী- দেয়ালের সেই বিশেষ সব মুহূর্তের স্মৃতিকে তুলে ধরতে ‘স্মৃতির আঙিনা’ ক্যাম্পেইন শুরু হয়। একইসাথে এর লক্ষ্য অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে সৃজনশীলতাকে উৎসাহিত করা। এর আগে এই ক্যাম্পেইনের সেরা ৩ অংশগ্রহণকারীর বাসায় যান জয়া।

ক্যাম্পেইনের সেরা ২০ অংশগ্রহণকারী বার্জার এক্সপ্রেস পেইন্টিং সেবা নেয়ার ক্ষেত্রে ৫০ শতাংশ ডিসকাউন্ট সুবিধা পান। এছাড়াও অন্যান্য সব অংশগ্রহণকারী পান ১০ শতাংশ ডিসকাউন্ট। এবার জয়ার সাথে নৈশভোজের সুযোগ পেলেন ক্যাম্পেইনের সেরা ২০ অংশগ্রহণকারী।

আয়োজনটি নিয়ে ভীষণ উচ্ছ্বসিত জয়া আহসান। উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে তিনি বলেন, বার্জার দেশের অন্যতম ব্র্যান্ড। যারা ক্রেতাদের সেরা মানের পেইন্টস সল্যুশন প্রদানের পাশাপাশি আরও উন্নত ইন্টেরিয়রের নিশ্চিত করার মাধ্যমে তাদের নিজস্ব লাইফস্টাইলের তুলে ধরার ব্যাপারে যত্নশীল। স্মৃতির আঙিনা ক্যাম্পেইনের অংশগ্রহণকারীদের সাথে চমৎকার এ অনুষ্ঠানে অংশ নিতে পেরে আমি সত্যিকার অর্থেই আনন্দিত। আমি বার্জারসহ সকল অংশগ্রহণকারীদের ধন্যবাদ জানাই চমৎকার এই সময়ের জন্য।

অন্যদিকে বার্জারের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রুপালী চৌধুরী বলেন, স্মৃতির আঙিনা ক্যাম্পেইনের লক্ষ্য ছিল আমাদের দেয়ালের গুরুত্ব ও এ নিয়ে আমাদের স্মরণীয় সব স্মৃতিকে তুলে ধরা। আমার বিশ্বাস, অংশগ্রহণকারীরা অনুষ্ঠান উপভোগ করেছেন। এ আয়োজনকে উপভোগ্য করে তোলার জন্য আমি আমাদের ক্যাম্পেইনের সকল অংশগ্রহণকারী ও জয়া আহসানকে ধন্যবাদ জানাই। আমরা ভবিষ্যতেও আমাদের মূল্যবান ক্রেতাদের জন্য এমন ক্যাম্পেইন নিয়ে আসার ব্যাপারে প্রত্যাশী।