বরিশাল বিমানবন্দর হবে সবথেকে আধুনিক ও যুগোপযোগী: বিমান প্রতিমন্ত্রী

বরিশাল বিমানবন্দর হবে সবথেকে আধুনিক ও যুগোপযোগী: বিমান প্রতিমন্ত্রী
বরিশাল বিমানবন্দর হবে সবথেকে আধুনিক ও যুগোপযোগী: বিমান প্রতিমন্ত্রী

পরিদর্শন কালে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মোঃ মাহবুব আলী বলেছেন, বরিশাল বিমানবন্দর হবে সবথেকে আধুনিক ও যুগোপযোগী। আর বাংলাদেশের সবথেকে সুন্দর বিমানবন্দর। এ ব্যাপারে কোন সন্দেহ নেই। আমরা প্রকল্প নিচ্ছি বরিশালের রানওয়ে অনেক বড় হবে এবং টার্মিনাল হবে সবথেকে অত্যাধুনিক। আমি মাননীয় প্রধনানমন্ত্রীর কাছে গিয়ে অর্থ বরাদ্দের জন্য অনুরোধ জানাবো।

বিমান প্রত্রিমন্ত্রী বলেন; বাংলাদেশের সবগুলো বিমানবন্দরেই মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে এবং নির্দেশনায় কাজ চালিয়ে যাচ্ছি। বরিশাল বিমানবন্দরে বিষয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী অনেক আন্তরিক। ওনার নির্দেশনায় বরিশাল বিমানবন্দরের রানওয়ে  ওভার-লে করণ কাজে খুব শীঘ্রই হাত দিচ্ছি। যাতে বিমানের স্মুথ ল্যান্ডিং হয়। একই সাথে বড় বিমান যাতে নামতে পারে সেজন্য রানওয়েকে আরো সাড়ে ৭ শত ফিট বাড়ানোর প্রকল্প আমরা হাতে নিবো। পাশাপাশি এখানে অত্যাধুনিক একটি নুতুন টার্মিনাল করার কাজ খুব দ্রুত হাতে নিবো। সবমিলিয়ে বরিশাল বিমানবন্দর নিয়ে আমাদের একটি মেজর প্রজেক্টর রয়েছে।

দেশের এভিয়েশন সেক্টর নিয়ে বঙ্গবন্ধুর অনেক স্বপ্ন ছিলো। আজ তার কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আসার পরে সারাদেশের প্রতিটি বিমানবন্দরে আধুনিকতার ছোয়া লেগেছে। হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর সর্বাধুনিক করা হচ্ছে। চাঙ্গি, হিদ্রো, জেএফকে বিমানবন্দর দেখে আমরা প্লান করেছি। তাই যুগের থেকেও আধুনিক একটি বিমানবন্দর আমরা হয়তো সেপ্টেম্বর ২০২৩ এ উদ্বোধন করতে পারবো।

মাহবুব আলী আরো বলেন, চট্টগ্রাম ও সিলেট এর বিমানবন্দকের আন্তর্জাতিক করা হয়েছে।আন্তর্জাতিক এবং আভ্যন্তরীন সবকিছুতে উন্নয়নের ছোয়া লেগেছে। আর বরিশাল যেহেতু বড় অবস্থানে রয়েছে, তাই এই বিমানবন্দরকে আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে রুপ দেয়ার জন্য সমস্ত পরিকল্পনাই হাতে নেয়া হবে। এ বিমানবন্দরসহ দেশের প্রতিটি বিমানবন্দরে যাতে বড় বিমানের ফ্লাইট পরিচালনা করতে পারে সেই ব্যবস্থা নেয়া হবে পর্যায়ক্রমে।
রাত দিন ২৪ ঘন্টা বিমান নামতে-উঠতে পারে সেই লক্ষেও সবগুলো বিমানবন্দরে পর্যায়ক্রমে কাজ করা হচ্ছে।

  প্রতিমন্ত্রী বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা বাংলাদেশের প্রতিটি বিমানবন্দরে যাতে ২৪ ঘন্টা বিমান ওঠানামা করতে পারে সেধরণের ব্যবস্থা নেয়া। আমরা অনেকগুলোতে এ ধরনের ব্যবস্থা নিয়েছি। তবে কোভিডের কারনে বিদেশ থেকে স্পেশালাইজড লোক আসতে না পারায় আমরা অনেকগুলো কাজ সমাপ্ত করেও চালু করতে পারিনি। বরিশালেও যাতে ২৪ ঘন্টা ফ্লাইট ওঠানামা করতে পারে সে কাজ একই সাথে করবো।

তিনি বলেন,শেষ ভালো যার সব ভালো তার।বরিশাল বিমানবন্দরের উন্নয়ন যেহেতু শেষে হচ্ছে, তাই অন্যান্য বিমানবন্দরের থেকে আরো আধুনিক এবং যুগের থেকেও আধুনিক বিমানবন্দর বরিশালে হবে।