ফেনীবাসীর মানবিক উপহার পেয়ে আপ্লুত সিলেটের বন্যা কবলিত মানুষ

89
ফেনীবাসীর মানবিক উপহার পেয়ে আপ্লুত সিলেটের বন্যা কবলিত মানুষ
ফেনীবাসীর মানবিক উপহার পেয়ে আপ্লুত সিলেটের বন্যা কবলিত মানুষ

ফেনী প্রতিনিধি : তখন ভর দুপুর, ঘড়ির কাঁটায় পৌনে ১ টা। ফেনীবাসীর মানবিক উপহার সামগ্রীর গাড়ি নিয়ে সিলেটের গোয়াইন ঘাট উপজেলার হাকুর বাজারে পৌঁছে ফেনী জেলা স্বেচ্ছাসেবক পরিবারের সদস্যরা। 

আগে থেকেই সেখানে সুশৃংঙ্খলভাবে অপেক্ষা করছিলেন বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ অসহায় মানুষগুলো। গাড়ি থেকে হলুদ রঙ্গের টি শার্ট পরা স্বেচ্ছাসেবকদের দেখেই আনন্দে উজ্জল হয়ে উঠছিলো জীর্ণ-শীর্ণ মানুষগুলোর চেহারা। 

ফেনী জেলা স্বেচ্ছাসেবক পরিবারের সদস্য ও স্থানীয় স্বেচ্ছাসেবকদের সহায়তায় সেখানে সুশৃঙ্খলভাবে মানবিক উপহার বিতরণের কাজ শেষ হলো। এত দূর থেকে এতোএতো উপহার পেয়ে দারুণভাবে আপ্লুত হয়েছে মানুষগুলো। অনেকের চোখে পানিও আসতে দেখেছে স্বেচ্ছাসেবকরা। 

এরপর স্বেচ্ছাসেবকরা ওই উপজেলার উত্তর হাওর, সোয়াম ফরেস্ট এলাকায় তিন ভাগ হয়ে ছড়িয়ে পড়ে। ছোট নৌকায় করে চার পাশের অথৈই জলের মধ্যে দ্বীপ সদৃশ বাড়ি গুলোতে পৌঁছে দিতে থাকে মানবিক উপহার।

এ জনমানবহীন হাওরে স্বেচ্ছাসেবকদের দেখে এবং উপহার সামগ্রী পেয়ে আনন্দে উদ্বেলিত হয়েছেন অনেকে। অসহায় মানুষগুলো জানান, এত দূর্গম পথ মাড়িয়ে কেউ সহযোগিতা নিয়ে আসেনা তাদের কাছে।

‘আমরা ফেনীবাসী’র ব্যানারে গত সোমবার (০৬ জুন)  ফেনী জেলা স্বেচ্ছাসেবক পরিবারের ১২ জন সদস্য  মানবিক উপহার সামগ্রী বিতরণ করেন। 

ফেনীবাসীর মানবিক সহায়তা প্রকল্পের প্রধান সমন্বয়কারী সাংবাদিক সোলায়মান হাজারী ডালিমসহ টিমে আরও ছিলেন ফেনী জেলা স্বেচ্ছাসেবক পরিবারের সদস্য ওমর বিন কাশেম সিফাত, হুমায়ুর কবির পারভেজ, সাংবাদিক ইয়াসির আরাফাত রুবেল, বিয়ানী বাজার মানবিক টিমের প্রতিষ্ঠাতা জুয়েল আহমেদ শাফী, ফেনী জেলা স্বেচ্ছাসেবক পরিবারের সদস্য খোন্দকার সুমন, নিশাত আদনান, সাইদুল ইসলাম তানজিল, মো: আবদুল্লাহ, জাফর উদ্দিন ফিরোজ, গোলাম রাব্বানী, গোলাম রাব্বী মল্লিক, মো: সাইফুদ্দিন। 

জানা যায়, জেলার কিছুসংখ্যক স্বেচ্ছাসেবক মিলে সিলেটের বন্যাদূর্গত অসহায় মানুষদের জন্য তহবিল তৈরী করা হয়। এ তহবিল থেকে সিলেটের গোয়াইনঘাটের প্রত্যন্ত অসহায় ২২৫ টি পরিবারকে খাদ্য সামগ্রী দেয়া হয়েছে।  ফেনীর স্বেচ্ছাসেবকরা অতীতেও দেশের বিভিন্ন প্রান্তের অসহায় মানুষদের সহায়তা করেছেন। তারই  ধারাবাহিকতায় এবার তারা সিলেটের বন্যাদুর্গতদের পাশে দাঁড়ালো।

প্রকল্পের সদস্য সচিব স্বেচ্ছাসেবী সংগঠক মঞ্জিলা আক্তার মিমি বলেন, বন্যাদূর্গত প্রতিটি পরিবারকে ১০ কেজি চাল, ৫ কেজি আলু, ২ কেজি পেয়াজ, ১ কেজি রশুন, ১ কেজি মশুর ডাল ও ১ প্যাকেট সয়াবিন তেল দেয়া হয়েছে। 

এছাড়াও ইউনাইটেড ট্রাষ্টের সৌজন্যে ৫০ পরিবারকে দেয়া হয়েছে শাড়ি ও লুঙ্গী।