ফেনীতে ৭ দিনব্যাপী জাতীয় মৎস্য সপ্তাহের উদ্বোধন 

104

শেখ আশিকুন্নবী সজীব,ফেনী প্রতিনিধি : নিরাপদ মৎস্য উৎপাদন ও চাষে মৎস্য চাষী, খামারী থেকে শুরু করে সংশ্লিষ্ট সকলকে এগিয়ে আসার আহবান জানিয়েছেন ফেনী জেলা প্রশাসক আবু সেলিম মাহমুদ-উল হাসান। মানুষের আমিষ চাহিদা পূরণের পাশাপাশি মৎস্য সম্পদের নিরাপদ উৎপাদনের বিষয়ে জোর দেন তিনি। গত রবিবার সকালে ফেনী সদর উপজেলা মিলনায়তনে ৭ দিনব্যাপী জাতীয় মৎস্য সপ্তাহের উদ্বোধন উপলক্ষ্যে আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এ আহবান জানান। 

প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক নিরাপদ মৎস্য সম্পদ উৎপাদনে সরকারের গৃহীত সিদ্ধান্ত ও কার্যক্রম বাস্তবায়নে সকলকে সচেতন হবার আহ্বান জানিয়ে বলেন, এটি নিশ্চিত করতে হলে মাছের নিরাপদ খাদ্য ও সঠিক নিয়মে মাছ চাষ করতে হবে। বাজারে যে সকল মাছের খাবার বিক্রি হয় সেগুলোর গুণগতমান যাচাই করতে হবে। এ বিষয়ে মৎস্য বিভাগকে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে হবে। প্রয়োজনবোধে মোবাইল কোর্ট পরিচালান করতে হবে। 

মৎস্য চাষীদের উদ্দেশ্যে জেলা প্রশাসক বলেন, মাছ চাষের বিষয়ে সঠিক পদ্ধতি ও নিয়ম মেনে চাষ করবেন। পরিবেশের ক্ষতি হয় এমন কিছু করা যাবে না। মানুষের স্বাস্থ্যের ক্ষতি হবে এমন কোন অসাধু পন্থা অনুসরণ করা যাবে না। মা ইলিশ রক্ষায় সরকারি বিধিনিষেধ মেনে চলতে হবে। তিনি আরও বলেন, মৎস্য চাষ এখন একটি লাভজনক পেশা। এ পেশায় নতুন মৎস চাষীদের উদ্বুদ্ধ করতে হবে। মৎস্যজীবীদের উৎপাদিত মাছ বিক্রি করার জন্য যথাযথ ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে হবে। ফেনীর উপকূলীয় এলাকায় বন্যায় মৎস্য চাষের ক্ষয়ক্ষতি রোধে কোন প্রকল্প বা ব্যবস্থা গ্রহণ করা যায় কিনা এ বিষয়ে মৎস্য বিভাগকে ব্যবস্থা গ্রহণের পরামর্শ দেন তিনি। 

জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোহাম্মদ বিল্লাল হোসেনের সভাপতিত্বে ও ইলিশ সম্পদ উন্নয়ন ও ব্যবস্থাপনা প্রকল্পের সহকারী মৎস্য কর্মকর্তা মৈত্রী বড়ুয়ার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর ফেনী’র উপ-পরিচালক মোঃ একরাম উদ্দিন, সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান শহীদ উল্যাহ খোন্দকার, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জোৎস্না আরা বেগম, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আনোয়ার হোসাইন পাটোয়ারী, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) থোয়াইং অংপ্রু মারমা প্রমুখ।

আলোচনা সভার আগে একটি র‌্যালির আয়োজন করা হয় এবং সদর উপজেলা পরিষদ পুকুরে মাছের পোনা অবমুক্ত করেন জেলা প্রশাসকসহ অতিথিরা। এবারের মৎস্য সপ্তাহের প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয়েছে ‘নিরাপদে মাছে ভরবো দেশ, বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ’। আগামী ২৯ জুলাই পর্যন্ত ৭ দিনব্যাপী চলবে এ সপ্তাহ।

 অনুষ্ঠান শেষে মৎস্য চাষীদের মাঝে মৎস্য খাদ্য বিতরণ করা হয়। 

ফেনীতে মৎস্য চাষ এবং উৎপাদনে বিশেষ ভূমিকা রাখায় ফেনীর ৩ মৎস্য খামারীকে সম্মাননা দিয়েছে জেলা মৎস্য অফিস। মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় তাদের হাতে সম্মাননা স্মারক ও সার্টিফিকেট প্রদান করেন জেলা প্রশাসক আবু সেলিম মাহমুদ-উল হাসান। 

অনুষ্ঠানে মৎস্য চাষে ভূমিকা রাখায় পরশুরাম পৌরসভার মেয়র নিজাম উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী সাজেলের মালিকানাধীন মেসার্স চৌধুরী ফিসারিজ, ছাগলনাইয়ার পাঠাননগর ইউপি চেয়ারম্যান রফিকুল হায়দার চৌধুরী জুয়েলের মালিকানাধীন রৌশন আরা মৎস্য খামার এবং ফেনী সদরের ফতেহপুরে শেখ ফজলে ইমাম রকির মালিকাধীন আরএমজি গ্রামীণ বহুমুখী মৎস্য প্রকল্পকে সম্মাননা দেয়া হয়। 

পৌর মেয়র সাজেল চৌধুরী বলেন, বর্তমান প্রেক্ষাপটে মৎস্য চাষীরা শঙ্কায় রয়েছে। খাবারের দাম বৃদ্ধির কারণে মৎস্য চাষে খরচ অনেক বেড়েছে। এ ব্যাপারে সরকার নজর দিলে মৎস্য চাষীরা উপকৃত হবে।

আরএমজি গ্রামীণ বহুমুখী মৎস্য প্রকল্পের স্বত্তাধিকারী শেখ ফজলে ইমাম রকি জানান, পোনা উৎপাদনে ভূমিকা রাখায় এ সম্মাননা আমরা পেয়েছি। তিনি জানান, ২০২১ সালে আমরা ১ কোটি ৩০ লাখ (পাবদা, গুলশা, শিং, মাগুর ও চিংড়ি) পোনা উৎপাদন ও বিক্রি করেছি৷ পোনা উৎপাদনের পাশাপাশি প্রকল্পে মাছ উৎপাদন করা হয়।