ফেনীতে ট্রেনের ধাক্কায় গৃহবধু নিহত

101
ফেনীতে ট্রেনের ধাক্কায় গৃহবধু নিহত
ফেনীতে ট্রেনের ধাক্কায় গৃহবধু নিহত

ফেনী প্রতিনিধি : রেললাইনের পাশ দিয়ে হাঁটাই কাল হলো। চলন্ত ট্রেনের বাতাসের ধাক্কা সামলাতে পারেনি ওই গৃহবধু। ট্রেনের ধাক্কায় মাথায় আঘাত পেয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যান তিনি। তার নাম আঁখি বেগম (৩৫)। তিনি ফেনীর মুহুরীগঞ্জ রেল স্টেশনের একজন কর্মচারী (পয়েন্ট ম্যান) ও লক্ষীপুর জেলার চন্দ্রগঞ্জ থানায় বালাসপুর গ্রামের বাসিন্দা আবদুল কাদেরের স্ত্রী। 

 বুধবার দুপুরে ফেনী রেল স্টেশনে দায়িত্বরত রেলওয়ে পুলিশ (জিআরপি) মুহুরীগঞ্জ স্টেশনের পাশে পড়ে থাকা তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ফেনী ২৫০ শয্যার জেনারেল হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করে। তার আগে সকাল ৯টা ৪০ মিনিটে তিনি ট্রেনে কাটা পড়ে মারা যান।

রেলওয়ে পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, চট্টগ্রাম থেকে সাগরিকা এক্সপ্রেস ট্রেনটি বুধবার সকাল ৯টা ৪০ মিনিটে ফেনীর মুহুরীগঞ্জ রেল স্টেশন এলাকা হয়ে  চাঁদপুরের দিকে যাচ্ছিল এ সময় মুহুরীগঞ্জ রেল স্টেশনের পয়েন্ট ম্যান আবদুল কাদেরের স্ত্রী রেললাইনের পাশ দিয়ে হাঁটছিলেন। এসময় ট্রেনের গতির সাথে বাতাসের গতিও বেড়ে যায়। গৃহবধু কিছু বুঝে ওঠার আগেই বাতাসের টানে তিনি চলন্ত ট্রেনের সাথে ধাক্কা লেগে মাথায় প্রচন্ড আঘাত পায়। এতে প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়। তিনি সেখানেই মারা যান। 

গৃহবধুর স্বামী আবদুল কাদের জানান, তিনি পরিবার নিয়ে ওই এলাকায় বসবাস করেন। রেল লাইনের পাশে হাঁটতে যাওয়াই তার কাল হলো। 

খবর পেয়ে ফেনী রেলওয়ে পুলিশ ওই স্থানে পৌঁছে রেল কর্মচারী ও স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ফেনী ২৫০ শয্যার জেনারেল হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করে।  

ফেনী রেল স্টেশনে কর্তব্যরত স্টেশন মাস্টার  মীর মো: ইমাম উদ্দিন সেন্টু ও দায়িত্বরত রেলওয়ে পুলিশ ক্যাম্পের উপ-পরিদর্শক (এসআই) রাজেন্দ্র প্রসাদ দাস বুধবার সকালে চাঁদপুর মুখী সাগরিকা এক্সপ্রেস ট্রেনের ধাক্কায় একজন গৃহবধু নিহত হওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করেন। তারা জানায়, লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ফেনী জেনারেল হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে। এঘটনায় লাকসাম রেলওয়ে থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা রুজু করা হয়েছে।