ফুলবাড়ী উপজেলার ১৯ হাজার ৪৪০ জন শিশুকে ভিটামিন এ প্লাস ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে

92
ফুলবাড়ী উপজেলার ১৯ হাজার ৪৪০ জন শিশুকে ভিটামিন এ প্লাস ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে
ফুলবাড়ী উপজেলার ১৯ হাজার ৪৪০ জন শিশুকে ভিটামিন এ প্লাস ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে

ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধি : দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলার পৌর এলাকাসহ সাতটি ইউনিয়নের ১৯ হাজার ৪৪০ জন শিশুকে ভিটামিন এ প্লাস ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। এজন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ।

১৯ হাজার ৪৪০ জন শিশুর মধ্যে ১২ থেকে ৫৯ মাস বয়সি ১৫ হাজার ৯৬৫ জন শিশুকে লাল রঙের এ প্লাস ক্যাপসুল এভং ৬ থেকে ১১ মাস বয়সি ৩ হাজার ৪৭৫ জন শিশুকে নীল রঙের ভিটামিন এ প্লাস ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে।

আগামী ১৫ জুন থেকে ১৯ জুন পর্যন্ত ভিটামিন এ প্লাস ক্যাপসুল খাওয়ানোর কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। এজন্য উপজেলার পৌরএলাকাসহ সাতটি ইউনিয়নে ১৯৪ টি কেন্দ্রের মাধ্যমে এ কার্যক্রম পরিচালিত হবে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা যায়, আগামী ১৫ থেকে ১৯ জুন শুক্রবার ব্যতিত সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত সাতটি ইউনিয়নের ২১টি ওয়ার্ডে একটি স্থায়ী এবং ১৬৮টি অস্থায়ী কেন্দ্রের মাধ্যমে ১২ হাজার ১১৫ জন শিশুকে লাল রঙের ক্যাপসুল ভিটামিন এ প্লাস এবং ২ হাজার ৯৭৫ জন শিশুকে নীল রঙের ভিটামিন এ প্লাস ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে।

এদিকে পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডের জন্য একটি স্থায়ী এবং ২৪টি অস্থায়ী কেন্দ্রের মাধ্যমে ৩ হাজার ৭৫০ টি লাল রঙের ভিটামিন এ প্রাস ক্যাপসুল ও ৫০০ শিশুকে নীল রঙের ভিটামিন এ প্লাস ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে।

এদিকে ভিটামিন এ প্লাস ক্যাপসুল খাওয়ানো কার্যক্রমকে সফল করতে মাঠ পর্যায়ে প্রতিটি স্থায়ী কেন্দ্রে দুইজন এবং ১৯৪ টি অস্থায়ী কেন্দ্রে ৩৮৪ জন কর্মী, ১৪ জন স্বাস্থ্য কর্মীসহ তিন স্তরে ৬৩ জন সুপারভাইজার এবং ১৬ জন পরিবার পরিকল্পনা কর্মী নিয়োজিত থাকবেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. মশিউর রহমান বলেন, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সিদ্ধান্তানুযায়ী আগামী ১৫ জুন থেকে ১৯ জুন পর্যন্ত সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে শিশুদের একযোগে ভিটামিন এ প্লাস ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। তবে শুক্রবার কার্যক্রম বন্ধ থাকবে। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে কোন শিশু এই কর্মসূচির আওতা থেকে বাদ পরে তবে তাকে বিশেষ ব্যবস্থায় ভিটামিন এ প্লাস ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। সকল শিশুকেই এই কর্মসূচির আওতায় এসে কর্মসূচিকে শতভাগ সফল করা হবে। এজন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।