নির্যাতিতদের সমর্থনে আন্তর্জাতিক সংহতি দিবসে ফেনীতে মতবিনিময় সভা

143
নির্যাতিতদের সমর্থনে আন্তর্জাতিক সংহতি দিবসে ফেনীতে মত-বিনিময় সভা
নির্যাতিতদের সমর্থনে আন্তর্জাতিক সংহতি দিবসে ফেনীতে মত-বিনিময় সভা

ফেনী প্রতিনিধি : নির্যাতিতদের সমর্থনে আন্তর্জাতিক সংহতি দিবসে ফেনীতে মত-বিনিময় সভার আয়োজন করা হয়েছে। রোববার (২৬ জুন) দুপুরে ফেনী রিপোর্টাস ইউনিটির সভাকক্ষে মত-বিনিময় সভায় বিচারের দাবিতে ছেলে হারানো মায়ের আহাজারিতে ভারি হয়ে উঠে সভাস্থল। 

সারাদেশে গুমের শিকার হওয়া ব্যক্তিদ্বয়ের মা’দের নিয়ে সংগঠন ‘মায়ের ডাক’ ও হিউম্যান রাইটস ডিফেন্ডারস নেটওয়ার্ক, ফেনীর আয়োজনে মত-বিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন ফেনী রিপোর্টাস ইউনিটির সভাপতি ও দৈনিক ফেনীর সময় পত্রিকার সম্পাদক মোহাম্মদ শাহাদাত হোসেন।

হিউম্যান রাইটস ডিফেন্ডারস নেটওয়ার্ক, ফেনীর ফোকাল পার্সন সাংবাদিক নাজমুল হক শামীমের সঞ্চালনায় মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন মানবাধিকার কর্মী সাংবাদিক শেখ আশিকুন্নবী সজীব। 

সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন গুমের স্বীকার হওয়া যুবদল নেতা মাহবুবুর রহমান রিপনের মা রৌশন আরা বেগম। বিশেষ অতিথি ছিলেন ফেনী প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি ও চ্যানেল আইয়ের জেলা প্রতিনিধি রবিউল হক রবি, সাপ্তাহিক স্বদেশ পত্র পত্রিকার সম্পাদক এন,এন জীবন, দৈনিক ইনকিলাবের জেলা প্রতিনিধি ওমর ফারুক, দৈনিক দেশ রুপান্তরের জেলা প্রতিনিধি শফি উল্যাহ রিপন, গেরিলা মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী নসু, শিক্ষক এম ডি মোশারফ, গুমের স্বীকার হওয়া যুবদল নেতা মাহবুবুর রহমান রিপনের মেঝ ভাই মোস্তাফিজুর রহমান।

সভায় গুম হওয়া যুবদল নেতা মাহবুবুর রহমান রিপনের মা রৌশন আরা পরিবারের কাছে তার ছেলেকে ফিরিয়ে দেয়ার দাবী জানিয়ে বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর ছেলে হারালে তিনি অবশ্যই ন্যায় বিচার নিশ্চিত করতেন। কিন্তু আমার মত অভাগা মা গুমের শিকার হওয়া ছেলের বিচারের দাবীতে দ্বারে দ্বারে ঘুরেও ৮ বছরে ও মেলেনি বিচার। ৮ বছর আগে আমার ছেলে যুবদল নেতা মাহবুবুর রহমান রিপনকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পরিচয়ে তুলে নেওয়া হলেও মামলা নেয়নি থানা। আজও হদিস পায়নি ছেলের।’ ছেলেকে ফেরত দেওয়াসহ রিপনের মত আর কোন ব্যক্তি যেন গুমের শিকার না হয় সেজন্য রাষ্ট্রকে জোরালো ভূমিকা রাখার দাবিও জানান মা রৌশন আরা।

নির্যাতিতদের সমর্থনে আন্তর্জাতিক সংহতি দিবসের মূল প্রবন্ধে জানানো হয়, ১৯৯৮ সালের ৫ অক্টোবর বাংলাদেশ জাতিসংঘ প্রণীত নির্যাতনের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক সনদে অনুস্বাক্ষর করেছে এবং এই কনভেনশন অনুমোদনকারী প্রতিটি রাষ্ট্রপক্ষ তাদের জাতীয় আইনে নির্যাতনকে একটি শ্বাস্তিযোগ্য অপরাধ হিসেবে গণ্য করতে সম্মত হয়েছে। এই অনুযায়ী ২০১৩ সালের ২৪ অক্টোবর ‘নির্যাতন এবং হেফাজতে মৃত্যু (নিবারণ) বিল ২০১৩’ জাতীয় সংসদে গৃহীত হয়। কিন্তু তারপরও আইন প্রয়োগকারী সংস্থার হেফাজতে নির্যাতন ও হেফাজতে মৃত্যুর ঘটনা ঘটেই চলছে। 

মায়ের ডাক ও হিউম্যান রাইটস ডিফেন্ডারস নেটওয়ার্ক নির্যাতনের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক কনভেনশনের পূর্ণাঙ্গ বাস্তবায়ন, কনভেনশন এগনইষ্ট টর্চার এর অপশনাল প্রোটোকল অনুমোদন এবং ২০১৩ সালের গৃহীত নির্যাতন বিরোধী আইনের পূর্ন বাস্তবায়নের দাবি জানাচ্ছে। 

মত-বিনিময় সভায় সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট ফেনী শাখার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জাহিদ হোসেন বাবলু, দৈনিক জনতার জেলা প্রতিনিধি মফিজুর রহমান, মানবাধিকার কর্মী আবদুস সালাম ফরায়জী,জেলা মহিলা দলের সাংগঠনিক সম্পাদক নুর তানজিলা রহমান, কবি মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম, সাংবাদিক জিয়াউল হক সোহেলসহ সাংবাদিক, শিক্ষক ও মানবাধিকার কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।