নিরাপদ অভিবাসন নিশ্চিত করতে হবে : জেলা প্রশাসক মজিবর রহমান

75
নিরাপদ অভিবাসন নিশ্চিত করতে হবে : জেলা প্রশাসক মজিবর রহমান
নিরাপদ অভিবাসন নিশ্চিত করতে হবে : জেলা প্রশাসক মজিবর রহমান

বাংলাদেশের অভিবাসনের ক্ষেত্রে তিনটি বিষয়ে আরো কাজ করার সুযোগ আছে। যারা বিদেশে যান তাদের জেনে বুঝে সঠিক তথ্য নিয়ে ও দক্ষ হয়ে বিদেশ যাওয়া উচিত বলে মন্তব্য করেছেন সিলেট জেলা প্রশাসক মোঃ মজিবর রহমান।

তিনি বলেন, অভিবাসন প্রবণ জেলাগুলোর মধ্যে সিলেট অন্যতম। দক্ষ হয়ে বিদেশ তাদের উপার্জিত রেমিটেন্স এর পরিমান বৃদ্ধি পাবে। নিয়মিত পথে বিদেশ যাত্রায় জীবনের ঝুঁকি কমাবে। যাতে আমাদের শ্রমিকদের মানবেতর জীবনযাপন করতে না হয়। পাশাপাশি বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক প্রদত্ত সেবাসমূহের তথ্য তৃণমূল পর্যায়ে পৌছাতে হবে। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন বাঙ্গালী জাতিকে কেউ দাবিয়ে রাখতে পারবে না।

বর্তমানে আমাদের যুবক সমাজের অভিবাসী হওয়ার ইচ্ছাকেও দাবিয়ে রাখা যাচ্ছে না। তারা প্রতিনিয়তই বিভিন্ন পথে অভিবাসী হচ্ছেন। এমনকি রাবারের টিউব নৌকার মাধ্যমে ভূমধ্যসাগর পাড়ি দেওয়ার চেষ্টা করেন।

তিনি আরো বলেন, বর্তমানে বাংলাদেশ ডেমোগ্রাফিক ট্রান্জিশান পিরিয়ডে অবস্থান করছে। এত বিপুল সংখ্যক জনগোষ্ঠীর কর্মসংস্থান হয়ত বাংলাদেশে করা সম্ভব হবে না, কিছু সংখ্যক মানুষ অভিবাসী হবেই এটা আমরা সকলেই জানি। তাই আমাদের নিশ্চিত করতে হবে দক্ষ ও নিরাপদ অভিবাসন।

সোমবার তারিখে জেলা প্রশাসক মহোদয়ের সম্মেলন কক্ষে সিলেট এ আইওএম-বাংলাদেশ ও ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রোগ্রাম- এর যৌথ উদ্যোগে বাস্তবায়নাধীন ‘প্রত্যাশা’ প্রকল্পের অধীনে ‘নিরাপদ অভিবাসন ও রেমিটেন্স ব্যবস্থাপনা বিষয়ে কমিউনিটি পর্যায় সংলাপ’ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে তিনি এই কথা বলেন।

বিদেশগামীদের প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষনের মাধ্যমে দক্ষ কর্মী প্রেরণে টিটিসি এবং ডিইএমও অফিসকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য অনুরোধ জানান তিনি। ব্র্যাকের নানা কাজের উদ্যোগের প্রশংসা করে তিনি বলেন, আমরা আশা করছি ব্র্র্যাকের পাশাপাশি অন্যান্য প্রতিষ্ঠানও নিরাপদ অভিবাসন নিয়ে একযোগে কাজ করে যাবে।

 অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সিলেট স্থানীয় সরকারের উপপরিচালক (উপসচিব),  মোঃ মামুনুর রশীদ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মিডিয়া) মোঃ লুৎফর রহমান। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক), মোঃ আনোয়ার সাদাত। অভিবাসন ও বিদেশ ফেরতদের অবস্থা এবং সিলেটের চিত্র তুলে ধরেন ব্র্যাক মাইগ্রেশন কর্মসূচির সিনিয়র ম্যানেজার মোঃ সাজ্জাদ হোসেন।

অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সিলেট কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের অধ্যক্ষ ওয়ালিউল্লা মোল্লা, সিলেট প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংক’র প্রিন্সিপাল অফিসার ও ম্যানেজার হুববুন নেছা তাছমিন। এছাড়া সরকারি ও বেসরকারি নানা দপ্তরের কর্মকর্তা ও সাংবাদিকসহ বেসরকারি বিভিন্ন সংস্থার কর্মকর্তারা উপস্থিত থেকে মূল্যবান মতামত ব্যক্ত করেন।
অনুষ্ঠান শেষে বেদেশ ফেরত তিনজনকে এককালীন ৯০, ৮০ ও ৭৫ হাজার টাকা করে তিনটি চেক প্রদান করা হয়।

অনুষ্ঠানে সরকারী সংস্থা ও ব্র্যাকের সহযোগীতায় সম্মিলিতভাবে অভিবাসীদের বিদেশ যাত্রার খরচ প্রদান করা, যা তারা বিদেশ গিয়ে পরবর্তীতে কিস্তির মাধ্যমে পরিশোধ করতে পারবে। সোসাল মিডিয়াতে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রনালয়ের সেবা সম্পর্কিত প্রচারণা বৃদ্ধি করা। প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংকের কার্যক্রম সহজীকরণ করা। প্রকল্প মেয়াদ শেষে সরকারী ব্যবস্থাপনায় সমসাময়িক কার্যক্রম মাঠ পর্যায়ে চলমান রাখা, বিদেশগামীদের জন্য নূন্যতম প্রাতিষ্ঠানিক দক্ষতা বাধ্যতামূলক করা ইত্যাদি বিষয়ে সুপারিশ উত্থাপন করার হয়।