নিবন্ধিত হজ যাত্রীদের এজেন্সি স্থানান্তর সংক্রান্ত বিশেষ বিজ্ঞপ্তি জারি

121
নিবন্ধিত হজ যাত্রীদের এজেন্সি স্থানান্তর সংক্রান্ত বিশেষ বিজ্ঞপ্তি জারি
নিবন্ধিত হজ যাত্রীদের এজেন্সি স্থানান্তর সংক্রান্ত বিশেষ বিজ্ঞপ্তি জারি

নিবন্ধিত হজ যাত্রীদের জন্য ধর্ম মন্ত্রণালয়ের বিশেষ বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়।

এ বছর হজের কার্যক্রম পরিচালনার জন্য বৈধ হজ এজেন্সির তালিকায় প্রকাশিত যেসব হজ এজেন্সির প্রাক-নিবন্ধিত ব্যক্তির সংখ্যা ৯৭ বা তার বেশি সেসব এজেন্সিকে ২০২২ সালে হজের নিবন্ধন স্থানান্তর কার্যক্রম সম্পন্নের জন্য এই বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে।

চলতি বছর হজে গমনের লক্ষ্যে লিড এজেন্সি নির্ধারণপূর্বক ২০২০ সালের নিবন্ধিত হজযাত্রীদের এজেন্সি স্থানান্তর সংক্রান্ত এই বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, নিবন্ধন স্থানান্তর কার্যক্রমের জন্য তালিকায় প্রকাশিত যেসব বৈধ হজ এজেন্সির নিবন্ধিত ব্যক্তির সংখ্যা ৯৭ জনের কম সেসব হজ এজেন্সি পরস্পর সমঝোতা করে সমন্বয় করবে।

এক্ষেত্রে হজ ও ওমরাহ ব্যবস্থাপনা আইন, ২০২১ এবং এর অধীনে প্রণীত হজ ও ওমরাহ ব্যবস্থাপনা বিধিমালা, ২০২২ (খসড়া) এর ২৫ বিধি অনুযায়ী লিড এজেন্সি (তপশিল-৬ এর ফরম ১১ মোতাবেক) নির্ণয় করতে হবে। সমন্বয়কারী এজেন্সিগুলোর নিবন্ধিত ব্যক্তিদের লিড এজেন্সিতে স্থানান্তর করে নির্ধারিত কোটা পূরণপূর্বক নির্ধারিত কোটার সংশ্লিষ্ট কার্যক্রম শেষ করতে হবে। চলতি মে মাসের ১৫ তারিখের মধ্যে লিড এজেন্সি নির্ধারণপূর্বক ২০২০ সালের নিবন্ধিত হজযাত্রীদের এক এজেন্সি থেকে অন্য এজেন্সিতে স্থানান্তর সম্পন্ন করতে হবে।

সমন্বয় কাজ শেষ হওয়ার পর সৌদি আরবের ই-হজ সিস্টেমে ইউজার তৈরির জন্য সৌদি আরবে হজ এজেন্সির তালিকা ও হজ এজেন্সিভিত্তিক হজযাত্রীর সংখ্যা (গাইড ও মোনাজ্জেমসহ) পাঠানো হবে। সৌদি আরবে এজেন্সিভিত্তিক হজযাত্রীর তথ্য প্রেরণের পর সকল ধরনের প্রতিস্থাপন এর কার্যক্রম শুরু হবে।

যেসব হজ এজেন্সি বিভিন্ন অভিযোগে শাস্তিপ্রাপ্ত, লাইসেন্স স্থগিত বা লাইসেন্স সচল না থাকায় যাদের ই-হজ সিস্টেমে এজেন্সির ইউজার আইডি এবং পাসওয়ার্ড বন্ধ রয়েছে, সে সকল হজ এজেন্সির অধীন বিদ্যমান নিবন্ধিত হজযাত্রীগণকে ২০২২ সালে হজ কার্যক্রমে অংশ গ্রহণের লক্ষ্যে তাঁদের ইউজার আইডি এবং পাসওয়ার্ড সচল করা রয়েছে। তারা সৌদি আরবে হজযাত্রী প্রেরণে উপযুক্ত এমন হজ এজেন্সির নিকট ১৫ মে তারিখের মধ্যে শুধু হজযাত্রী স্থানান্তর কার্যক্রম সম্পন্ন করতে পারবে।

এরপর তাদেও ইউজার আইডি এবং পাসওয়ার্ড আগের মতোই বন্ধ থাকবে। তাদের ইউজার আইডি এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে কোনো নিবন্ধন, হজযাত্রী স্থানান্তরপূর্বক গ্রহণ ইত্যাদি কার্যক্রম সম্পন্ন করা যাবে না।