নড়াইলের একটি আদর্শ ও অনুকরণীয় পরিবার

79
নড়াইলের একটি আদর্শ ও অনুকরণীয় পরিবার
নড়াইলের একটি আদর্শ ও অনুকরণীয় পরিবার

উজ্জ্বল রায়, জেলা প্রতিনিধি নড়াইল প্রতিনিধি : নড়াইলের একটি আদর্শ ও অনুকরণীয় পরিবার। অবসরপ্রাপ্ত উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ লুৎফর রহমান ও সীতারামপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোসাঃ সবেদা খাতুন দম্পতি নড়াইলের একটি আদর্শ ও অনুকরণীয় পরিবার। পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে নড়াইল পৌরসভার আলাদাতপুর গ্রামের মোঃ লুৎফর রহমান ১৯৮৬ সালে কালিয়ায় সহকারী উপজেলায় শিক্ষা অফিসার হিসাবে নিয়োগ প্রাপ্ত হয়ে কর্মজীবন শুর করেন। ২০১২ সালে পদোন্নতি পেয়ে ঝিকরগাছা উপজেলা শিক্ষা অফিসার পদে দীর্ঘদিন সততা ও নিষ্ঠার সাথে দায়ীত্বপালন করে ২০১৮ সালে লোহাগড়া উপজেলা শিক্ষা অফিসার হিসাবে অবসরে যান। পরে স্বস্ত্রীক পবিত্র হজ্জ ব্রত পালন করে বর্তমানে অবসর জীবনযাপন করছেন।

মোসাঃ সবেদা খাতুন ১৯৯৩ সালে মুলিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক হিসাবে কর্মজীবন শুরু করেন। ২০০৬ সালে পদোন্œতি পেয়ে পিবি সরকারী প্রাথিমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক সিাবে যোগদান করেন। ২০০৭ সালে বদলী হয়ে বর্তমানে সীতারামপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন। জানা গেছে এই দম্পতির দুই সন্তান পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় হতে সর্বোচ্চ ডিগ্রী অর্জন করে বর্তমান বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (বিসিএস) এ ক্যাডার হিসাবে কর্মরত রয়েছেন। বড় সন্তান মুহাম্মদ নাজমুল হুসাইন রনি নড়াইল সরকারি মহিলা কলেজে প্রাণিবিদ্যার প্রভাষক হিসাবে কর্মরত। তাঁর স্ত্রী মোসাঃ তানজিনা আক্তার বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় হতে সর্বোচ্চ ডিগ্রী অর্জন শেষে বর্তমান ময়মনসিং অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেডে সিনিয়র অফিসার  হিসাবে কর্মরত রয়েছেন ।

ছোট সন্তান ইন্জিনিয়ার মাহমুদ হুসাইন রাজু প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়েসহকারী পরিচালক পদে কর্মরত রয়েছেন। বর্তমান তিনি ৪০ তম বিসিএস (এডমিন)এ সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পদে সুপারিশপ্রাপ্ত। তাঁর স্ত্রী ডাঃ শান্তা ইসলাম ঢাকা মেডিকেল কলেজ হতে এমবিবিএস ডিগ্রী অর্জন করে বর্তমান বিসিএস স্বাস্থ্য ক্যাডারে কর্মরত রয়েছেন। নড়াইল শহরের আলাদতপুর গ্রামের সেতু আহসান বলেন, বর্তমান যুগে সন্তান মানুষের মত মানুষ করা খুবই কঠিন কাজ। কিন্ত নড়াইল শহরের আমাদের মহল্লার একটি পরিবার দুটি সন্তানকেই আদর্র্শ ও অনুকরণীয় হিসাবে গড়ে তুলতে সক্ষম হয়েছেন।

এজন্য অবসরপ্রাপ্ত উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ লুৎফর রহমানকে সুপার হিরো ও মোসাঃ সবেদা খাতুনকে রতœগর্ভা মা উপাধীতে ভুষিত করা উচিত। সদর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সাধারন সম্পাদক মোঃ জাকির হোসেন বলেন, মোঃ লুৎফর রহমান স্যার উপজেলা শিক্ষা অফিসার থাকাকালিন সময়ে নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করেছেন। এবং স্যারের দুটি ছেলেকেই সুশিক্ষায় শিক্ষিত করতে পেরেছেন। সদর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি শিকদার আব্দুল আলিম বলেন, মোসাঃ সবেদা খাতুন সীতারামপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হিসাবে সুনামের সাথে দায়ীত্বপালন করে আসছেন।

তিনি যোগদানের পর হতে বিদ্যালয়ের শতভাগ পাশের রেকর্ড অক্ষুন্ন রেখেছেন। এবং তিনি ছেলেদের উন্œত শিক্ষায় শিক্ষিত করে মানুষের মত মানুষ করেছেন। এজন্য তিনাকে রতœগর্ভা মা উপাধি দেওয়া যায়। নড়াইল জেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সাধারন সম্পাদক মোঃ আঃ বাসার বলেন, অবসরপ্রাপ্ত উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ লুৎফর রহমান স্যার চাকুরীকালে নিষ্ঠা ও সততার সাথে কর্তব্য পালন করেছিলেন। কাজের স্বীকৃতিস্বরুপ একাধিকবার সেরা শিক্ষা অফিসার নির্বাচিত হয়েছেন। ২০১৩ সালে তিনি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত হতে পুরষ্কার গ্রহন করেছিলেন।

বড় সন্তান মুহাম্মদ নাজমুল হুসাইন রনি বলেন আমার পিতা মাতা ব্যক্তিগত জীবনে ধর্মভিরু ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী। আমাদের পরিবারের জন্য সকলের কাছে দোয়া কামনা করেছি। নড়াইল সদর উপজেল প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ আতিকুর রহমান বলেন,আমার জানামতে অবসরপ্রাপ্ত সদর উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ লুৎফর রহমান স্যার অত্যন্ত বিচক্ষনতার সাথে ন্যায়নিষ্ঠ ভাবে সুনামের সাথে দায়িত্ব পালন করেছিলেন। এবং সীতারামপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোসাঃ সবেদা খাতুন সুনামের সাথে দায়িত্ব পালন করে নজির স্থাপন করেছেন। আমি এই পরিবারের জন্য শুভকামনা করি।