কিশোরীকে ফুসলিয়ে হাসপাতালের বাথরুমে নিয়ে ধর্ষণের দায়ে যুবক গ্রেপ্তার

541
কিশোরীকে ফুসলিয়ে হাসপাতালের বাথরুমে নিয়ে ধর্ষণের দায়ে যুবক গ্রেপ্তার
কিশোরীকে ফুসলিয়ে হাসপাতালের বাথরুমে নিয়ে ধর্ষণের দায়ে যুবক গ্রেপ্তার

কিশোরগঞ্জ শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চারতলা থেকে এক কিশোরীকে ফুসলিয়ে নিচতলার বাথরুমে নিয়ে গিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণের অভিযোগে এক যুবককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সিসিটিভি ফুটেজ বিশ্লেষণ করে অভিযুক্ত যুবককে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয় পুলিশ ও আনসার সদস্যরা।

১২ বছর বয়সী কিশোরীকে ধর্ষণের ঘটনায় কিশোরগঞ্জ মডেল থানায় মামলা হওয়ার পর ওই যুবককে গ্রেপ্তার করা হয়। তার নাম মাছুম মিয়া (২০)। সে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার যশোদল ইউনিয়নের মুসলিমপাড়া গ্রামের বাসিন্দা। তার বাবার নাম মোমতাজ মিয়া।

ধর্ষণের ঘটনাটি ঘটেছে ঈদের দিন মঙ্গলবার, ৩ মে রাত সাড়ে ৯টার দিকে। সেদিন শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নিচতলায় বাথরুমে ওই কিশোরী ধর্ষণের শিকার হন। ঘটনার পরদিন বুধবার মেয়েটির বাবা মামলা করার মাত্র একদিনের মাথায় বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় অভিযুক্ত যুবককে গ্রেপ্তার করা হয়।

কিশোরগঞ্জ মডেল থানা সূত্রে জানা গেছে, ধর্ষণের শিকার মেয়েটির বাবা বুধবার রাতে কিশোরগঞ্জ মডেল থানায় মামলা করেন। মামলা হওয়ার পরপরই ধর্ষককে গ্রেপ্তার করতে তৎপরতা শুরু করে পুলিশ।

মামলা হওয়ার পরদিন বৃহস্পতিবার বিকেলে অভিযুক্ত যুবক আবারও অসৎ উদ্দেশ্যে মেডিকেল কলেজ এলাকায় ঘুরতে আসে। তখন তাকে আটক করা হয়। আটকের পর তার ছবি তুলে ধর্ষণের শিকার মেয়েটিকে দেখানো হয়। ছবি দেখে তাকে শনাক্ত করে মেয়েটি।

এর আগে গত ২৭ এপ্রিল মেয়েটির মা শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগে ভর্তি হন। ঈদের দিন বাবার সাথে মেয়েটি মেডিকেল কলেজে যায়। সেখানে তাকে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে নিচতলার বাথরুমে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে অভিযুক্ত যুবক।

হাসপাতালের চতুর্থ তলায় মেডিসিন ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন মাকে দেখতে গিয়েছিল মেয়েটি। সঙ্গে তার বাবাও ছিল। ঘটনার দিন মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে চিকিৎসক ওয়ার্ড পরিদর্শনে যান। সেসময় রোগীর সঙ্গে থাকা লোকজনদের ওয়ার্ড থেকে বাইরে যেতে বলা হয়। তখন মেয়েটি ওয়ার্ড থেকে বের হয়ে গেলেও তার বাবা ভেতরেই থেকে যান। ওয়ার্ডের বাইরে অপেক্ষারত অবস্থায় মেয়েটিকে অপরিচিত ওই যুবক ফুসলিয়ে হাসপাতালের চারতলা থেকে নিচতলার একটি বাথরুমে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে।

চারতলা থেকে নিচতলায় যাওয়ার পর অভিযুক্ত যুবকের অসৎ উদ্দেশ্য বুঝতে পারে মেয়েটি। সে দৌড়ে চলে আসারও চেষ্টা করে। কিন্তু যুবকটি তার মুখ চেপে ধরে ভয়ভীতি প্রদর্শনপূর্বক বাথরুমে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে। ঘটনার পর মেয়েটির চিৎকার শুনে নিচতলা থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়।

এদিকে সিসিটিভি ফুটেজেও ঘটনার সঙ্গে অভিযুক্ত যুবকের সম্পৃক্ততা খুঁজে পাওয়া যায়। নিচতলার একটি সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায়, মেয়েটিকে সিঁড়ির একপাশে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছে যুবকটি। কিন্তু মেয়েটি না যাওয়ার জন্য জোরাজুরি করছে।