দ্রব্যমূল্য নিয়ে বিএনপিকে অস্থিতিশীলতা সৃষ্টি করতে দেওয়া হবে না: কৃষিমন্ত্রী

দ্রব্যমূল্য নিয়ে বিএনপিকে অস্থিতিশীলতা সৃষ্টি করতে দেওয়া হবে না: কৃষিমন্ত্রী
দ্রব্যমূল্য নিয়ে বিএনপিকে অস্থিতিশীলতা সৃষ্টি করতে দেওয়া হবে না: কৃষিমন্ত্রী

কৃষিমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ড. মো: আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, বিএনপিসহ কিছু রাজনৈতিক দল ভিত্তিহীন তথ্যের ভিত্তিতে নিত্যপণ্যের সামান্য দাম বৃদ্ধিকে অতিরঞ্জিত করে দেশে অস্থিতিশীলতা তৈরির পায়তারা করছে। প্রতিবাদের নাম করে আন্দোলন-কর্মসূচি দিয়ে দেশে অরাজকতা তৈরি করার চেষ্টা করছে। দ্রব্যমূল্যের দাম কিছুটা বাড়লেও দেশে খাদ্যদ্রব্যের কোন হাহাকার নেই, সংকট নেই। এ অবস্থায়, বিএনপি যদি মনে করে দ্রব্যমূল্যের কিছুটা দাম বৃদ্ধির জন্য দেশে আন্দোলন-সংগ্রাম করবে, অস্থিতিশীলতা সৃষ্টি করবে, সেটি তারা কিছুতেই পারবে না। তাদের এ অপপ্রয়াস অতীতের মতো এবারো ব্যর্থতায় পরিণত হবে।

আজ টাঙ্গাইলের মধুপুরে মালাউড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে টিসিবির ফ্যামিলি কার্ড বিতরণ উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেন। মধুপুর পৌরসভা এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।
মন্ত্রী বলেন, করোনার কারণে বিশ্বব্যাপী খাদ্যশস্যের উৎপাদন ও সরবরাহ বিঘ্নিত হয়েছে। অন্যদিকে ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধের প্রভাব খাদ্যশস্যের দামের ওপর পড়েছে। ফলে, বিশ্বব্যাপী খাদ্যপণ্যের দাম অস্বাভাবিক বৃদ্ধি পেয়েছে, দেশেও সম্প্রতি নিত্যপণ্যের দাম কিছুটা বেড়েছে। এ অবস্থায়, দেশে নিত্যপণ্যের দাম সহনীয় পর্যায়ে রাখতে ও মানুষের কষ্ট লাঘব করতে সরকার নিরলস চেষ্টা করছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিম্নআয়ের খেটে খাওয়া গরিব মানুষের কষ্ট লাঘব করার জন্য ভর্তুকি দিয়ে কম মূল্যে দেশের এক কোটি পরিবারকে নিত্যপণ্য দেওয়ার ব্যবস্থা করেছেন। এতে দরিদ্র মানুষেরা উপকৃত হবেন ও তাদের কষ্ট অনেকটা লাঘব হবে।

কৃষিমন্ত্রী আরো বলেন, বর্তমান সরকার সবসময়ই জনগণের দুঃখ-কষ্টে পাশে ছিল, আছে এবং ভবিষ্যতেও থাকবে। এক কোটি পরিবারকে কমমূল্যে নিত্যপণ্য দেওয়ার এ ধারা অব্যাহত থাকবে। প্রয়োজনে আরো খাদ্য ও অন্যান্য সহায়তা নিয়ে আমরা জনগণের পাশে দাঁড়াবো। তিনি বলেন, কয়েকদিন পরেই রোজা শুরু হচ্ছে। রমজান মাসে ঈদের আগে আমরা ভিজিএফ দিবো, ১০ টাকা কেজিতে চাল বিতরণ করবো। ছোলা, ডাল, পেঁয়াজ, খেজুরসহ বিভিন্ন পণ্য দেওয়া হবে। এছাড়া, এপ্রিলের মাঝামাঝিতে নতুন ফসল আসবে। সব মিলিয়ে আমরা দ্রুত দাম নিয়ন্ত্রণ করতে পারবো ও নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম সহনীয় পর্যায়ে নেমে আসবে বলে আশা করি।

অনুষ্ঠানে উপজেলা চেয়ারম্যান ছরোয়ার আলম খান আবু, উপজেলা নির্বাহী অফিসার শামীমা ইয়াসমিন, পৌরসভার মেয়র মো: সিদ্দিক হোসেন খান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
পরে কৃষিমন্ত্রী টাঙ্গাইল শহরের শহীদ স্মৃতি পৌর উদ্যানে জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে অংশগ্রহণ করেন।