তেঁতুলিয়ায় বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টে ভাঙচুর

144

মুহম্মদ তরিকুল ইসলাম, পঞ্চগড় প্রতিনিধিঃ পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া উপজেলায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুননেছা মুজিব জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট-২০২২ খেলায় অতর্কিত হামলা ও চেয়ার ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে।

শনিবার (৩০ জুলাই ২০২২) বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে উপজেলার ৫নং বুড়াবুড়ি ইউনিয়নের নাওয়াপাড়া আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে এ ঘটনা ঘটে। বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতার এই জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট খেলায় অতর্কিত হামলা ও চেয়ার ভাঙচুরের ঘটনাটি নারায়নগছ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অভ্যন্তরীণ কোন ব্যক্তির ইন্ধনে এবং দলের পক্ষপাতিত দর্শক কর্তৃক ঘটানো হয়েছে প্রকাশ্যে ভিডিও চিত্রসহ অভিযোগ উঠেছে।

সূত্র জানায়, গত সোমবার (২৫ জুলাই) ওই ইউনিয়নের সকল প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৮টি টিমের মাধ্যমে নাওয়াপাড়া আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট, বালক (অনূর্ধ্ব-১৭) ও বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুননেছা মুজিব জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট, বালিকা (অনূর্ধ্ব-১৭) খেলা অনুষ্ঠিত হয়। শনিবার (৩০ জুলাই) জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট, বালক (অনূর্ধ্ব-১৭) এর ইউনিয়ন পর্যায় ফাইনাল খেলায় নারায়নগছ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও কালদাসপাড়া ডাংগী সেরাজুল হক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মধ্যে অনুষ্ঠিত হলে এ খেলায় নির্ধারিত সময়ের শেষ দিকে দুই দলের ভিতর কালদাসপাড়া ডাংগী সেরাজুল হক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দলটি ১টি গোল করেন। অপরদিকে নারায়নগছ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দলটি কোন গোল ঠেকাতে পারেননি।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, নারায়নগছ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দলটি কোন গোল ঠেকাতে না পেরে কালদাসপাড়া ডাংগী সেরাজুল হক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় দলটির উপর ‘হ্যান্ড হয়েছে’ তহমত দিয়ে অতর্কিত হামলা ও চেয়ার ভাঙচুরের ঘটনাটি ঘটান।
ঘটনার সময় মাঠে উপস্থিত ছিলেন, নাওয়াপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক, কালদাসপাড়া ডাংগী সেরাজুল হক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও নারায়নগছ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকসহ ইউপি সদস্য ও দর্শকগণ।
প্রত্যক্ষদর্শী হিসেবে স্থানীয় ইউপি সদস্য মোঃ নুরুজ্জামান (নুর) জানান, কালদাসপাড়া ডাংগী সেরাজুল হক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় জয় লাভ শতভাগ সম্ভাবনা থাকায় বিপক্ষ দলের সমর্থকরা হামলা-ভাঙচুর ও খেলা পন্ড করেন। এতে স্থানীয়দের মধ্যে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে।

এই বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতার জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট খেলায় সকল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মনোনীত রেফারী মোঃ সাদেকুল ইসলামসহ দুইজন সহকারী রেফারী বলেন, হ্যান্ড হয়েছে এই কথা সঠিক নয়। তাঁরা আরোও জানান, গত সোমবার (২৫ জুলাই) থেকে রেফারীর দায়িত্ব পালন করে আসছে এখনও তাদের বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ উঠেননি।

নাওয়াপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়েল ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক ফারুক হোসেন বলেন, ‘তিনি খেলার পরিচালনা পরিষদে উপস্থিত ছিলেন। খেলা শেষ হওয়ার ২-৪মিনিট আগ মুহুর্তে নারায়নগছ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এই হামলা ও চেয়ার ভাঙচুর করেন। নারায়নগছ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দর্শকরা হাতে লাঠিসোঠা নিয়ে চেয়ার ভাঙচুর করেন বলে তিনি জানিয়েছেন।

এ বিষয়ে নারায়নগছ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হাফিজুল ইসলাম বলেন, ‘ছেলেদের হার-জিত বড় বিষয় নয়, আনন্দই মূল।’ তিনি বলেন, তার বিদ্যালয়ের ছেলেরা (দলটি) পরাজিত হলে অনেকটাই ভালো হবে নিজের পকেটের টাকায় উপজেলা নিয়ে যেতে হচ্ছেনা। অনেকেই বলছেন খেলায় আপনার বিদ্যালয় কর্তৃক এই ঘটনাটি ঘটানো হয়েছে এমন প্রশ্নোত্তরে জানান, তিনি কোন দর্শককে ডেকে নিয়ে আসেননি। এতে দর্শকরা এমন ঘটনা ঘটাবে তিনিও বুঝে উঠতে পারেনি। বহিরাগতরা এমন আচরণ করবে এটা অত্যান্ত দুঃখজনক।

কালদাসপাড়া ডাংগী সেরাজুল হক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক তোফাজ্জল হোসেন বলেন, বিষয়টি উপজেলা শিক্ষা অফিসারকে অবগত করা হয়েছে। তিনি এই ঘটনার বিষয়ে ইউনিয়ন কমিটির সভাপতি বরাবরে লিখিত অভিযোগ করতে বলেন।

এ ব্যাপারে উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান জানান, এই বিষয়ে তিনি অবগত আছেন। তিনি বলেন, এই বিষয়ে রেজুলেশনের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এতে যদি ওই স্কুল জড়িত থাকে তাহলে তাকে তলব করা হবে। তবে যদি কোন ৩য় পক্ষ হয়ে থাকে তাহলে তাদের চিহ্নিত করে, তাদের বিরুদ্ধে সাধারন ডাইরী (জিডি) করে আইনের আওতায় নিয়ে আসলে খুবই ভালো হবে কেননা এভাবে ভবিষ্যৎ নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। ‘এটা বঙ্গবন্ধুর নামে খেলাধুলা এই খেলা মারামারি করার না, মারামারি করার মানে দাড়াচ্ছে টুর্নামেন্টাকে কলঙ্কিত করা। এতো শক্তি কার? কেন যাবে? ওখানে তো আমার কমিটি আছে।’

উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুননেছা মুজিব জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট-২০২২ এর উপজেলা কমিটির সভাপতি সোহাগ চন্দ্র সাহা বলেন, এটি একটি অনাকাঙ্খিত ঘটনা। খোঁজ খবর নিয়ে বিষয়টি দেখবেন জানিয়েছেন।