ঢাকা মহানগীরর জলাবদ্ধতা নিরসনে সমঝোতা স্মারক সাক্ষরিত

101
ঢাকা মহানগীরর জলাবদ্ধতা নিরসনে সমঝোতা স্মারক সাক্ষরিত
ঢাকা মহানগীরর জলাবদ্ধতা নিরসনে সমঝোতা স্মারক সাক্ষরিত

পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক বলেছেন রাজধানীর খাল, ড্রেন, বক্স কালভার্ট ও ব্রিক সুয়ারেজ লাইন দিয়ে বৃষ্টির পানি নদীতে যেতে পারছে না। ঢাকার পার্শ্ববর্তী প্রায় সবকটি নদী তার অস্তিত্ব সংকটে ভুগছে। ঢাকায় বৃষ্টির পানি সরে যাওয়ার প্রাকৃতিক ব্যবস্থা নষ্ট হয়ে গেছে। আগে বৃষ্টির পানি খাল দিয়ে নদীতে চলে যেত কিন্তু এখন এ সব খাল বা নদী প্রায় ভরাট হয়ে গেছে। এমতবস্থায় সিটি কর্পোরেশনের রাজধানীর খালগুলো সংস্কার ও সৌন্দর্য বধর্নে দায়িত্ব নিতে যাচ্ছে তা সত্যিই আশাব্যঞ্জক। কয়েকদিন আগে ভারী বৃষ্টির ফলে আগের তুলনায় খুব অল্প যায়গায় পানি জমে ছিল যা মানুষের স্বাভাবিক চলাচলে তেমন বিঘ্ন ঘটায়নি। সিট কপোরেশনের কার্যকলাপ আমাদের  আলোর পথ দেখাচ্ছে।

আজ রাজধানীর হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টাল এর গ্রান্ড বলরুমে ঢাকা মহানগীরর জলাবদ্ধতা নিরসনে বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নিয়ন্ত্রণাধীন রেগুলেটর/ ড্রেনেজ আউটলেট স্ট্রাকচারসমূহ ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের অনুকূলে হস্তান্তরের লক্ষ্যে সমঝোতা স্মারক অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী জাহিদ বলেন; বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঢাকায় দুজন জনবান্ধব নিষ্ঠাবান মেয়রকে এনেছেন। আধুনিক মানুষিকতার মেয়রদয়ের হাত ধরেই ঢাকা ফিরে পাবে তার প্রাকৃতিক রুপ। ঢাকা শহরে কয়েক ঘণ্টা বৃষ্টি হলেই জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হতো। এখন প্রেক্ষাপট একটু ভিন্ন আধুনিক মানুষিকতার মেয়র এবং তাদের কর্মতৎপরতা নগরবাসীর পূর্বের তুলনায় আনেক কম দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্থানীয় সরকারমন্ত্রী তাজুল ইসলাম বলেন; সারা বাংলাদেশকে উন্নত করার জন্য বঙ্গবন্ধুর যে স্বপ্ন ছিল, প্রধানমন্ত্রী তা পূরণ করে চলেছেন তর মধ্যে অন্যতম পদ্মা সেতু।  ঢাকা শহরকে আমরা দৃষ্টিনন্দন, বাসযোগ্য, স্বাস্থ্যকর নগরীতে রূপান্তর করতে চাই। ঢাকা শহরকে ঠিক করতে হলে যার যে দায়িত্ব, সেটি সঠিকভাবে পালন করতে হবে। যে কাজ আমি করলে ঠিক হবে সেটি আমি করব, আর যে কাজ আমি করলে ঠিক হবে না, সেটি ধরে রাখা ঠিক হবে না। ঢাকার খালগুলোকে পরিস্কার করে দৃষ্টিনন্দন করতে হবে।

পরিকল্পনা অনুযায়ী, খালের কাঙ্ক্ষিত কাজগুলো বাস্তবায়ন করা গেলে বর্ষাকালে সামান্য বৃষ্টিতেই আর ডুবে যাবে না রাজধানী ঢাকা। মুষলধারে বৃষ্টি হলেও কয়েক ঘণ্টার মধ্যে পানি খাল ও ড্রেন দিয়ে বুড়িগঙ্গা, শীতলক্ষ্যা, তুরাগ, বালু নদীতে নেমে যাবে বলে।

মহাপরিচালক পানি উন্নয়ন বোর্ড ফজলুর রশিদ ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন এর প্রধান নির্বাহী ফরিদ আহম্মদ স্ব স্ব দপ্তরের পক্ষে সমঝোতা স্মারক সই করেন। ঢাকা শহরের জলাবদ্ধতা নিরসনের দায়িত্ব (খাল ও ড্রেনেজ) আনুষ্ঠানিকভাবে পানি উন্নয়ন বোর্ডের কাছ ৫৫ টি স্লুইস গেট ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন স্থানীয় সরকার,পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মদ মেজবাহ্ উদ্দিন চৌধুরী। স্বাগত বক্তব্য রাখেন মুস্তাকিম বিল্লাহ ফারুকী,অতিরিক্ত সচিব,নগর উন্নয়ন অনুবিভাগ,স্থানীয় সরকার বিভাগ।

অনু্ঠানে স্থানীয় সরকার,পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো: তাজুল ইসলাম প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন।ৱ

স্থানীয় সরকার,পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য,  ঢাকা দক্ষিণ সিটির মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নুর তাপস ও ঢাকা উত্তর সিটির মেয়র মো: আতিকুল ইসলাম এবং পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব কবির বিন আনোয়ার বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।