ডেপুটি স্পিকারের মৃত্যুতে পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী ও উপ-মন্ত্রীর শোক

115
ডেপুটি স্পিকারের মৃত্যুতে পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী ও উপ-মন্ত্রীর শোক
ডেপুটি স্পিকারের মৃত্যুতে পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী ও উপ-মন্ত্রীর শোক

বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার ও গাইবান্ধা-৫ আসনের সংসদ সদস্য,বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রবীণ রাজনীতিবিদ বীর মুক্তিযোদ্ধা ফজলে রাব্বী মিয়ার মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক এমপি ও উপ-মন্ত্রী একেএম এনামুল হক শামীম এমপি।

প্রতি মন্ত্রী ও উপ-মন্ত্রী মরহুম ফজলে রাব্বী মিয়ার বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করেন এবং তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।

আজ এক শোক বার্তায় তারা বলেন,ফজলে রাব্বী মিয়ার মতো রাজনীতিবিদের মৃত্যু এ দেশের রাজনীতিতে শূন্যতা তৈরি করলো। সংসদীয় ধারার রাজনীতিতে তিনি অনবদ্য অবদান রেখে গেছেন। গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় তার একনিষ্ঠ ভূমিকার কারণে তিনি দীর্ঘদিন স্মরণীয় হয়ে থাকবেন।

দীর্ঘ নয় মাস দুরারোগ্য ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে নিউইয়র্কের মাউন্ট সিনাই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকার পর শুক্রবার মারা যান ডেপুটি স্পিকার।

প্রয়াত ফজলে রাব্বী মিয়ার জন্ম গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলার বটিয়া গ্রামে ১৯৪৬ সালে। ১৯৫৮ সালে পাকিস্তানের সামরিক শাসক আইয়ুব খান মার্শাল ল জারি করলে তার বিরোধিতার আন্দোলনে নেমে প্রথম আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়েন ফজলে রাব্বী মিয়া। রাজনৈতিক সংগ্রামের ধারাবাহিকতায় একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে ১১ নম্বর সেক্টরের যোদ্ধা হিসেবে অংশ নেন প্রয়াত ফজলে রাব্বী মিয়া।

সবশেষ ২০১৮ সালের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে গাইবান্ধা-৫ (ফুলছড়ি-সাঘাটা) আসন থেকে আওয়ামী লীগ প্রার্থী হিসেবে সপ্তমবারের মতো জয়ী হন তিনি।

মৃত্যুকালে তিনি তিন মেয়ে, নাতি-নাতনিসহ অসংখ্য আত্মীয়-স্বজন ও গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।