ঠাকুরগাঁওয়ে টয়লেট থেকে আদিবাসীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

79
ঠাকুরগাঁওয়ে টয়লেট থেকে আদিবাসীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার
ঠাকুরগাঁওয়ে টয়লেট থেকে আদিবাসীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

আনোয়ার হোসেন আকাশ, রাণীশংকৈল (ঠাকুরগাঁও)প্রতিনিধি : ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার নারগুন ইউনিয়নের কৃষ্ণপুরে শ্বশুরবাড়ির টয়লেট থেকে কমল কিসকু (২৫) নামে  এক আদিবাসীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

সোমবার (০১ আগস্ট) রাত সাড়ে ১১টার দিকে টয়লেট থেকে কমল কিসকুর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করা হয়। তিনি সদর উপজেলার জগনাথপুর ইউনিয়নের বড় খোচাবাড়ি আদিবাসী মার্কেট এলাকার সম কিসকুর ছেলে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত এক সপ্তাহ আগে কৃষ্ণপুর গ্রামে শ্বশুরবাড়ির তে আসেন কমল কিসকু। সোমবার (০১ আগস্ট) রাতে ঢাকা যাওয়ার কথা ছিল তার। তাই তিনি ব্যাগও গুছিয়ে রেখেছিলেন। এক সময় শ্বশুরবাড়ির স্বজনরা তার সেই ব্যাগটি বারান্দায় পরে থাকতে দেখে তাকে কে খোঁজাখুঁজি করেন। খোঁজাখুঁজির একপর্যায়ে একজন টয়লেট যাওয়ার জন্য টয়লেটের দিকে যায়।

কিন্তু টয়লেটের দরজা বন্ধ পায়। দীর্ঘক্ষণ টয়লেটের দরজা বন্ধ থাকায় ও গেট ধাক্কাধাক্কি করেও সারা না পাওয়া টয়লেটের দরজা ভেঙ্গে দেখতে পায় কমল কিসকুর ঝুলন্ত মরদেহ। পরে খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে ঝুলন্ত মহরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। কমল কিসকু পারিবারিক কলাহের কারণে আত্মহত্যা করেছেন বলে দাবি করছে শ্বশুরবাড়ির লোকেরা।

কমল কিসকুর শ্বশুর বাপোই মার্ডি বলেন, চার বছর আগে আমার মেয়ে দিপালি মার্ডির সাথে সম্পর্ক করে কমল কিসকু বিয়ে করেন। কিন্তু তাদের এই বিয়ে এখনো ছেলের পরিবার মেনে নেননি। সেই কষ্টেই হয়তো আমার জামাই এই আত্মহত্যার পথ বেঁচে নিয়েছেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) চন্দন কুমার বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে কমল কিসকুর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। আমরা এখনো ঘটনা স্থলেই আছি। মরদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে।