ছোট পোশাকে অশ্লীলতা ছড়াচ্ছেন, মালাইকা-উরফির বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ

155
ছোট পোশাকে অশ্লীলতা ছড়াচ্ছেন, মালাইকা-উরফির বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ
ছোট পোশাকে অশ্লীলতা ছড়াচ্ছেন, মালাইকা-উরফির বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ

সিনেমায় নিয়মিত না থাকলেও আলোচনায় থাকেন বলিউডের মালাইকা আরোরা ও উরফি জাভেদ। সেটা নানা কর্মকাণ্ডে। অদ্ভুত পোশাকের কারণে প্রায়ই খবরের শিরোনাম হন উরফি। কখনো প্রায় পোশাক না পরে জনসম্মুখে নিজেকে মেলে ধরেন। অন্যদিকে, খোলামেলা পোশাক পরে প্রায়ই আলোচনায় আসেন মালাইকা। ছোট ছোট ভিডিও ও ছবি পোস্ট করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভক্তদের কাছে রীতিমতো হইচই ফেলে দেন তারা। এবার সে কারণেই আইনি জটিলতায় পড়তে যাচ্ছেন।

দুজনের উপরেই ভারতীদের মাঝে অশ্লীলতা ছড়ানোর অভিযোগ উঠেছে। কিছু সমাজকর্মী ও এনজিও যৌথভাবে এই অভিযোগ নিয়ে থানায়ও গিয়েছেন।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা গেছে, মালাইকা ও উরফির বিরুদ্ধে মুম্বাই পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগ জানানো হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে ভারতীয় সংস্কৃতি নষ্ট ও অশ্লীলতার অভিযোগ তুলে অভিযোগ করেছে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা।

স্বেচ্ছাসেবী সংস্থাটির দাবি, মালাইকা ও উরফি সমাজকে নোংরা করছেন। তারা নতুন প্রজন্মকে ভুল পথে নিয়ে যাচ্ছেন। তাই তাদের উচিত শিক্ষা দেওয়া হোক।

সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হওয়া একটি ভিডিও মালাইকাকে নতুন করে আলোচনায় নিয়ে আসে। এতে দেখা যায়, ফ্যাশন শো-তে ছবি তোলার সময় এক ব্যক্তি হঠাৎ মালাইকার বুকে হাত দিয়ে ফেলেন।

অন্যদিকে, ফটো ও ভিডিও শেয়ারিং সাইট ইনস্টাগ্রামে নতুন কয়েকটি ছবি আপলোড করেছেন উরফি। এতে দেখা যায়, শুধুমাত্র চুল দিয়ে তার বুক ঢেকে রেখেছেন তিনি। তার পরনে শুধু একটি নীল রঙের জিনস প্যান্ট। নাকে নথ।

https://www.instagram.com/reel/Cea7k4EtUPk/?utm_source=ig_web_copy_link

জীবন নিজের শর্তে বাঁচতে পছন্দ করেন উরফি। নেটদুনিয়ায় নানারকম হাসি-ঠাট্টা চলে তাকে নিয়ে। কেউ বলেন, কাপড়ের ঘাটতি হয়েছে অভিনেত্রীর। কেউ কেউ আবার অভিনেত্রীর পোশাক বাছাই ও ফ্যাশনের রুচি নিয়েও প্রশ্ন তুলে দিয়েছেন। তবে উরফির সাফ মন্তব্য, ‘আমি সত্যিই বিষয়গুলোকে পাত্তা দিই না। কয়েকজন আমার পোশাক নিয়ে কী বলল না বলল, তা নিয়ে কেন ভাবব বলুন তো!’

পোশাক নিয়ে ওঠা সমালোচনায় কান দিতে রাজি নন মালাইকাও। সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে এই নিয়ে বলেছিলেন, ‘এই পোশাকই যদি রিহানা পরত, জেনিফার লোপেজ পরত বা বিয়ন্সে পরত তাহলে সবাই বাহ বাহ করত। আমি মনে করি এই মহিলারা আমাকে সবসময় অনুপ্রেরণা যোগায়। আর এই জিনিসটাই যদি তুমি করো, তাহলে এরা বলবে এসব কী করছ। এ একজন মা, এ ওমুক-তোমুক। আমার একটাই কথা যদি হলিউডে কারও গায়ে কোনও ভালো লাগে, তাহলে এখানে কেন নয়। এরকম ডবল স্ট্যান্ডার্ডের কারণ কী?’