Home খবর জাতীয় চুয়াডাঙ্গায় মাঙ্কিপক্স সন্দেহে বৃদ্ধা আইসোলেশনে, মাঙ্কিপক্স নেগেটিভ তুর্কী যুবক (ভিডিও)

চুয়াডাঙ্গায় মাঙ্কিপক্স সন্দেহে বৃদ্ধা আইসোলেশনে, মাঙ্কিপক্স নেগেটিভ তুর্কী যুবক (ভিডিও)

একদিকে সুসংবাদ, আরেকদিকে দুঃসংবাদ। তুরস্ক থেকে বাংলাদেশে আসা যুবক মাঙ্কিপক্সে আক্রান্ত নন বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে। বৃহস্পতিবার, ৯ জুন হাসপাতাল ছেড়েছেন তিনি। ঠিক একইদিন সকালে মাঙ্কিপক্সের উপসর্গ নিয়ে এক বৃদ্ধা চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল চিকিৎসার জন্য গেলে তাকে হোম আইসোলেশনে পাঠানো হয়েছে। বিষয়টি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাকেও অবগত করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার, ৯ জুন সকালে মাঙ্কিপক্সের উপসর্গ নিয়ে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে যান ষাটোর্ধ্ব এক বৃদ্ধা। তার বাড়ি সদর উপজেলার শঙ্করচন্দ্র ইউনিয়নের।

চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানায়, বৃহস্পতিবার সকালে ষাটোর্ধ্ব এক বৃদ্ধা হাসপাতালের জরুরি বিভাগে চিকিৎসা নিতে আসেন। তার হাতের আঙুল, তালুসহ দেহের নানা অংশে বড় আকৃতির ফোসকা দেখা যায়। সারা শরীর ও মাথায় ব্যথা ছিল। জ্বর এবং শারীরিক দুর্বলতাও ছিল। সবমিলিয়ে মাঙ্কিপক্সের উপসর্গ মনে হওয়ায় তাৎক্ষণিকভাবে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দিয়ে ওই বৃদ্ধাকে হোম আইসোলেশনে পাঠিয়ে দেওয়া হয়।

মাঙ্কিপক্স রোগের উপসর্গ পাওয়ার পর পক্সের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে ওই বৃদ্ধাকে। বিষয়টি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সমন্বয়কারী কর্মকর্তাকে অবহিত করা হয়েছে।

বৃদ্ধার পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, তার শারীরিক কোনো রকম সমস্যা ছিল না। তিনি পুরোপুরি সুস্থই ছিলেন। কিন্তু হঠাৎ করে গত মঙ্গলবার তার হাতের তালুসহ শরীরের বিভিন্ন অংশে ফোসকা উঠতে শুরু করে। শারীরিক অবস্থার উন্নতি না হওয়ায় বৃহস্পতিবার সকালে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসকরা জানান, শরীরের ফোসকাগুলো মাঙ্কিপক্সের উপসর্গ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

এদিকে গত মঙ্গলবার, ৭ জুন টার্কিশ এয়ারলাইন্সের বিমানে তুরস্কের নাগরিক আকশি আলতে ঢাকার হযরত শাহজালাল বিমানবন্দরে নামার পর মাঙ্কিপক্স সন্দেহে তাকে রাজধানীর মহাখালীতে সংক্রামক ব্যাধি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ৭ থেকে ৯ জুন- তিন দিন তাকে আইসোলেশনে রেখে পর্যবেক্ষণ করা হয়। পর্যবেক্ষণে থাকাকালীন তার শরীরে মাঙ্কিপক্সের লক্ষণ পাওয়া যায়নি। তার হাত, পা, কনুই ও হাঁটুর চামড়ায় ফুসকুড়ি থাকলেও সেগুলো মাঙ্কিপক্সের উপসর্গ নয়, বরং তার পুরোনো চর্মরোগের।

সংক্রামক ব্যাধি হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পর মাঙ্কিপক্সে আক্রান্ত সন্দেহভাজন ৩২ বছর বয়সী আকশি আলতের নমুনা সংগ্রহ করে রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইডিসিআর)। পরীক্ষার পর নেগেটিভ রিপোর্ট পাওয়া। এ কারণে বৃহস্পতিবার তুরস্কের ওই নাগরিককে হাসপাতাল ত্যাগের ছাড়পত্র দেওয়া হয়। পরে হাসপাতাল ছাড়েন তিনি।

Exit mobile version