ঘোড়াঘাটে ঐতিহ্যবাহী ঋষিঘাট বারুণী মেলা অনুষ্ঠিত

133

ঘোড়াঘাট (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটে ঐতিহ্যবাহী ঋষিঘাট গঙ্গা স্নান বারুণী মেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৯ জুন) ঘোড়াঘাট উপজেলার সিংড়া ইউনিয়নে ঐতিহ্যবাহী ঋষিষাট বারুনী মেলায় ভোর থেকে পূজা-অর্চনা, র্কীতন, গীতা-ভাগবত পাঠ, হাজার-হাজার নারী-পুরুষের গঙ্গা স্নান, প্রসাদ বিতরণ ও ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্যে দিয়ে এ মেলা অনুষ্ঠিত হয়। মেলা ঘিরে আশপাশের হিন্দু সম্প্রদায়ের বাড়িতে বাড়িতে চলছে আনন্দ, উৎসব। প্রতিটি বাড়িতে দুর দুরান্ত থেকে এসেছে আত্মীয় স্বজন। চলছে খাওয়া দাওয়ার ধুম। মেলায় বসেছে শিশুদের আনন্দের জন্য নাগরদোলা সহ খেলাধুলার বিভিন্ন সরঞ্জাম ও দোকানপাট।

উপজেলা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি সাংবাদিক মনোরঞ্জন মোহন্ত ভুট্টু জানান, এ মেলা উপলক্ষে বিভিন্ন এলাকা থেকে হিন্দু সম্প্রদায়ের হাজার-হাজার নারী-পুরুষের সমাগম ঘটে। হিন্দু সম্প্রদায়ের অনুসারীরা পাপ মুক্তির জন্য জেষ্ঠ মাসের শুক্ল পক্ষে দশমী তিথিতে গঙ্গা স্নান করে থাকে। ঋষিঘাট মন্দির কমিটির সভাপতি ও  বারুনী মেলার সাধারণ সম্পাদক প্রকাশ চন্দ্র  সরকার জানান, মেলা উপলক্ষে মা-বোনদের গঙ্গা স্নানের জন্য আলাদা ব্যবস্থা করা হয়েছে। এছাড়া মা, বোনদের নিরাপত্তার দিক বিবেচনা করে একটি স্বেচ্ছাসেবক টিম গঠন করা হয়েছে।    

মেলা কমিটি ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবদুর রাফে খন্দকার সাহানশা বলেন, ধর্ম যার যার উৎসব সবার। প্রতি বছর এ মেলাতে বিভিন্ন জেলা থেকে হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজন গঙ্গা স্নান করতে আসেন। গত দু’বছর করোনার ভাইরাসের কারনে মেলা করা সম্ভব হয়নি। করোনার প্রকোপ অনেকটা কাটিয়ে ওঠায় এ বছর মেলা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

ঘোড়াঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু হাসান কবির জানান, মেলার সার্বিক নিরাপত্তা বিবেচনা করে মেলা কমিটির স্বেচ্ছাসেবক, গ্রাম পুলিশ ও থানা পুলিশের টিম মাঠে কাজ করছে। যেন কোন প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে এ উপলক্ষে থানা পুলিশের নজরদারি রয়েছে। 

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাফিউল আলম জানান, হিন্দু সম্প্রদায়ের ঐতিহ্যবাহী এ মেলাটি শত শত বছর ধরে শান্তি পূর্ণ-ভাবে হয়ে আসছে। মেলা অনুষ্ঠিত করতে উপজেলা ও থানা প্রশাসন সার্বিক সহযোগিতা করছে।